মেইন ম্যেনু

বিয়েতে ১০ হাজার গাছ উপহার চান কনে

ভয়াবহ খরার কবলে পড়েছে ভারত। প্রতি চারজনে অন্তত একজন পানি সংকটে ভুগছেন। এই পরিস্থিতি নিয়ে দেশটির যুব সমাজের উদাসীনতাও দেখেন অনেকে। তবে এর ব্যতিক্রম যে একেবারে নেই তাও নয়। আর এটি প্রমাণ করেছেন মধ্যপ্রদেশের ভিন্ড জেলার প্রিয়াঙ্কা ভাদোরিয়া।

বিয়েতে কী উপহার চাই জানতে চেয়েছিলেন তার শ্বশুরবাড়ির অতিথিরা। প্রিয়াঙ্কা জানায়, ১০ হাজার গাছ লাগাতে হবে। গত শুক্রবার (২২ এপ্রিল) বিশ্ব ধরিত্রি দিবস পালিত হয়েছে। ওই দিনই বিয়ে ঠিক হয় ২২ বছরের প্রিয়াঙ্কার। আর পরিবেশ সচেতন মানুষ হিসেবে বিশ্বকে কিছু ফিরিয়ে দিতেই প্রিয়াঙ্কা এমন উপহার চান যাতে গোটা দেশ উপকৃত হয়। গোয়ালিয়র-চম্বল অঞ্চলের রীতি অনুযায়ী, বিয়ের আগে পাত্রীর কাছে কী উপহার নেবে তা জানতে চাওয়া হয়।

সাধারণত এটা জিজ্ঞাসা করেন পাত্র নিজেই। সে দিনও এ কথাই জানতে চান পাত্র রবি চৌহান। এতে প্রিয়াঙ্কা জানান তার মনের ইচ্ছে। এ বয়সের মেয়েরা বিয়ের উপহার হিসেবে যে সব জিনিস চেয়ে থাকেন, তিনি তার ধারের কাছেও যাননি। প্রিয়াঙ্কার কথা শুনে শুধু শ্বশুরবাড়ির লোকজনই নয়, তার নিজের পরিবারও বিস্ময় প্রকাশ করেছে।

তবে এ ঘটনায় দুই পরিবারের সদস্যরা যথেষ্ট খুশি। প্রিয়াঙ্কা বলেন, ১০ বছর বয়স থেকে গাছ লাগানো শুরু করি। এখন তো এটা নেশার মতো হয়েছে। পরিবেশের ওপর যথেষ্ট অত্যাচার হচ্ছে প্রতিনিয়ত। আমরা নিজেরা যদি এ নিয়ে না ভাবি, তবে অদূর ভবিষ্যতে এর জন্য সবাইকে ভুগতে হবে। ধরিত্রি দিবসে যখন আমার বিয়ে ঠিক হয়, তখনই ঠিক করেছিলাম ওই উপহার চাওয়ার বিষয়ে।






মন্তব্য চালু নেই