মেইন ম্যেনু

বিয়ের দাবি মেনে নিতে মানববন্ধন

এসএম হাবিব, ঝিনাইদহ থেকে : ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কুঠিদুর্গপুর গ্রামে হিন্দু মেয়ের বিয়ের দাবি মেনে নিতে ও প্রতারক এক প্রেমিকের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে এলাকাবাসী। শনিবার সকাল ১০টায় কুটি দুর্গাপুর শৈলমারী বাজারে শত শত গ্রামবাসী মানবন্ধন কর্মসূচী পালন করে।

কুমড়ো বাড়ি ইউনিয়নের মেম্বর কলিম উদ্দিন জানান, ওই গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে ইমরান হোসেন পার্শ্ববর্তী ডেফোলবাড়ি গ্রামের সরজিত কুমারের মেয়ে মুক্তিরানীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক করে ২ বছর ধরে ঝিনাইদহ শহরে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মতো বসবাস করতো। মুক্তিরানী সম্প্রতি বিয়ের জন্য চাপ দিলে ইমরান তা অস্বীকার করে। এ ঘটনার পর গত ৮ মে তারিখ মুক্তিরানী বিয়ের দাবিতে ইমরানের বাড়িতে অবস্থান করে। খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী বেতাই পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই তরিকুল ইসলাম মেয়েটির পরিবারকে বুঝিয়ে তাদের হাতে তুলে দেয়। এ ঘটনার পরের দিন আবার মুক্তিরানী ইমরানের বাড়িতে চলে আসে। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে আদালতে সোপর্দ করে।

ইমরানের বাবা জানান, তার ছেলেকে ফিরে পেলে বিয়ে দেয়া হবে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। আদালত তাকে বর্তমানে বাগেরহাট সেফহোমে রেখেছে।

তিনি আরো জানান, মুক্তির দাবি ইমরান হিন্দুধর্ম গ্রহণ করে তার সঙ্গে বসবাস করেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে এবং ইমরানের শাস্তির দাবিতে শনিবার সকালে কুটিদুর্গাপুর-শৈলমারী বাজারে শত শত গ্রামবাসী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। তাদের দাবি ইমরানের সঙ্গে মুক্তিরানীর বিয়ে দেয়া হোক।

ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি হাসান হাফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি তিনি জানেন, পারিবারিক ও সামাজিকভাবে বিষয়টি মীমাংসা না হওয়ায় ঘটনাটি আদালত পর্যন্ত গেছে। আগামী ২৪ মে বিষয়টি নিয়ে আদালতে মীমাংসা হবে।






মন্তব্য চালু নেই