মেইন ম্যেনু

বিয়ের পর কয়েকদিন যে সমস্যায় পড়েন মেয়েরা

আমাদের সমাজে প্রচলিত আছে যে বিয়ের পর নারী পুরুষ দুজনেই নাকি পাল্টে যান। তবে বিয়েটা নারী পুরুষ দুজনে করলেও পরিবর্তনটা নারীর জীবনে একটু বেশিই আসে।

মেয়েদেরকে তার নিজের পরিবারসহ অনেক কিছুই ছেড়ে যেতে হয়। নতুন বাসায় গিয়ে মানিয়ে চলার চেষ্টা পুরুষকে করতে হয় না। আর নারীর জীবনের এই পরিবর্তনটা আসে হুট করেই এবং বিয়ের প্রথম দিন থেকেই। তাই বিয়ের প্রথম দিনে নারীদের মনে চলতে থাকে নানা বিষয়ে ভাবনার খেলা।

যারা ভাবছেন বিয়ের প্রথম দিনগুলো স্বপ্নের মতো কেটে যায় খুব সহজেই, সেদিকে সদ্য বিবাহিতারা ভাবছেন দিয়ে প্রথম দিনগুলো কীভাবে পার করবেন। তা নিয়ে দুশ্চিন্তা না করে জেনে নিন সেইসব সমস্যার কথা।

এক. প্রতিটি নারীর মনে বিয়ের প্রথম দিনে সবার আগে যে কথাটি বাজতে থাকে তা হচ্ছে,সবার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারবো তো, সকলে আমাকে পছন্দ করবে তো? শ্বশুর বাড়ির সকলের সাথে তাল মেলানোর কঠিন পরীক্ষা শুরু হয়ে যায় প্রথম দিন থেকেই।

দুই. বোঝার বয়স হওয়ার পর থেকেই কমবেশি প্রায় সকল মেয়েরাই বিয়ের পরিকল্পনা করতে থাকেন। আর তাই আপনার মনে হতে পারে যে আমি গতকালও বিয়ে নিয়ে কতো পরিকল্পনা করছিলাম, আজকে সত্যিই আমি বিবাহিতা! এই বাক্যটি কমবেশি সব নারীর মনে হতে থাকে প্রথম কয়েকটা দিন।

তিন. প্রায় প্রতিটি নারীরই বিয়ের প্রথম দিন থেকেই সকালে ঘুম থেকে উঠা নিয়ে চিন্তায় থাকেন। ‘সঠিক সময়ে উঠলাম তো’ এই চিন্তা করেই বিছানায় পার করে দেন সকালের প্রথম ১০ মিনিট।

চার. নিজের বাসায় পুরনো আরামদায়ক একসেট কাপড় পড়ে দিন পার করে দিলেই চলতো, কিন্তু বিয়ের পর প্রথম দিন থেকেই কোন পোশাকটি পরা যায় তা নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান নারীরা।

কোনটি পড়লে মানানসই হবে এবং তা আরামদায়কও হবে এ নিয়ে চিন্তা করে মাথার চুল ছিঁড়তে ইচ্ছে করে।

পাঁচ. প্রেমের বিয়ে হোক বা পরিবারের পছন্দের বিয়েই হোক না কেন, বিয়ের প্রথম দিনেই নারীদের মনে বাজতে থাকে, ‘ভুল সিদ্ধান্ত নিলাম না তো, আরেকটু বোঝা উচিত ছিল কি অথবা এখন কি করবো’ এই ধরণের অনেক প্রশ্ন।

ছয়. যদিও প্রায় অনেক ঘরেই বউ-শাশুড়ির যুদ্ধ লেগে থাকে, কিন্তু বিয়ের প্রথমেই কিন্তু নারীদের মনে শাশুড়ির প্রতি সম্মানই থাকে।

যা হয়তো ধীরে ধীরে নষ্ট হয়। আর তাই বিয়ের প্রথম দিনেই নারীরা ভাবতে থাকেন শাশুড়ির মন জুগিয়ে কীভাবে চলা যায়।

সাত. আরেকটি ভয়াবহ ব্যাপার নিয়ে বিয়ের প্রথম দিনেই নারীরা ভাবেন তা হলো রান্না করার ব্যাপারটি। আপনি যত পাকা রাঁধুনিই হোন না কেন বিয়ের পরপর নতুন একটি বাড়িতে গিয়ে সকলের স্বাদমতো রান্নার চাপে সব গুলিয়ে বসে থাকেন অনেক নারী। আর ভাবেন, আমার রান্না অখাদ্য হয়ে গেলো না তো।

সংগ্রহীতঃ হেলথ কেয়ার সেন্টার






মন্তব্য চালু নেই