মেইন ম্যেনু

বিয়ের প্রলোভনে অনৈতিক সম্পর্ক, স্কুলে তালা

রাজশাহী ব্যুরো প্রধান: রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় এক সহকারী শিক্ষিকা ও একই স্কুলের লাইব্রেরিয়ানের অনৈতিক কর্মকান্ডের বিচার দাবিতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে এলাকাবাসি।

উপজেলার সরেরহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শনিবার স্কুল চলাকালিন সময়ে গত শনিবার শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা এই তালা ঝুলিয়ে দেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ স্কুল পরিচালনা কমিটির মাধ্যমে তালা খুলে দেয়।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, সরেরহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি এক শিক্ষিকার (২৮) সঙ্গে ওই লাইব্রেরিয়ান জাকির হোসেননের অনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে।

সর্বশেষ গত বুধবার রাতে জাকিরের বাসায় তারা দু’জনকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করেন স্থানীয়রা। এ সময় জাকির বিয়ের আশ্বাস দিলে ওই শিক্ষিকাকে তার বাড়িতে রেখে আসে পুলিশ। ওই দিন ওই শিক্ষিকা দাবি করেন, বিয়ের প্রলোভন দিয়ে জাকিরুল তাকে তার বাড়িতে ডেকে নেন। যদিও শিক্ষিকার এই দাবি মিথ্যা বলে দাবি করেন জাকিরুল।

তবে ওই দিন বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য তাদের দু’দিনের সময় বেঁধে দেওয়া হয়। এদিকে প্রায় তিন বছর ধরে তাদের প্রেম ঘটিত অনৈতিক বিষয় নিয়ে কানাঘুষা হলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা নেন নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য আরজ আলীসহ স্থানীয় অভিভাবক আয়নাল হক, রাজা এবং বিচ্ছাদ আলী জানান, শিক্ষকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই মুহুর্তে শিক্ষিকা বিয়ে করতে রাজি হলেও লাইব্রেরিয়ান জাকির হোসেন তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে।

এ খবর শুনে ১৬ মার্চ সন্ধ্যায় শিক্ষিকা জাকিরের বাড়িতে গিয়ে উঠেছিল। ঘটনার ৩ দিন পেরিয়ে গেলেও কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় স্কুলে তালা লাগিয়ে দেন অভিভাবকরা।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাচ্চু সরকার জানান, বিষয়টি নিয়ে শনিবার বিকালে পরিচালনা কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি রমজান আলী জানান, স্থানীয় অভিভাবকদের অভিযোগের কারণে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহামুদ জানান, সমাধানের আশ্বাস দেওয়ায় কোনো পক্ষই অভিযোগ করেন নি। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই