মেইন ম্যেনু

বি.বাড়িয়ায় ফের উত্তেজনা, যুবদল আহ্বায়কসহ আটক ৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রদের বর্বরতার পর দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার করা হচ্ছে বিএনপি ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের। সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়কসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।ভাঙচুর ও আগুন সন্ত্রাসের পর সংবাদ মাধ্যমগুলোতে মাদ্রাসা ছাত্রদের দায়ী করা প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও সম্প্রতি হেফাজত নেতা আল্লামা আহমেদ শফীর হুঁশিয়ারির পর পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার অভিযানে নামে।শফী বলেছেন, ভাঙচুর ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য মাদ্রাসা ছাত্রদের গ্রেপ্তার করা হলে দেশবাসী তা মেনে নেবে না।

আজ সোমবার ভোর রাতে শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই চারজনকে আটক করা হয়েছে বলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাঈনুর রহমান জানিয়েছেন।

আটকরা হলেন, সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক সাহেদ, রাব্বি, ছোটন ও শাজাহান মিয়া।

উল্লেখ্য, গত ১১ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে পুলিশ, ছাত্রলীগ ও মাদ্রাসা ছাত্রদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আহত মাদ্রাসাছাত্র মো. মাসুদুর রহমান পরদিন মারা যান।

এর জের ধরে পরদিন সকালে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। তারা শহরের টিএ রোড, কুমারশীলের মোড়, লোকনাথ ট্যাঙ্কের পাড়সহ বেশ কয়েকটি স্থানে অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে।

এছাড়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্সের ব্যাংক এশিয়া, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, জেলা আওয়ামী লীগ অফিস, প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র এবং সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন সংগীতাঙ্গনে ভাঙচুর ও আগুন দেয়।

এ ঘটনায় মোট পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে অন্তত ১২টি মামলা করা হয়। এসব মামলায় অজ্ঞাত ১২ সহস্রাধিক মানুষকে আসামি করা হয়। এছাড়া মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকেও একটি মামলা করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই