মেইন ম্যেনু

বুলগেরিয়ায় বোরকা নিষিদ্ধ

ইউরোপের আরও একটি দেশে বোরকা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডের দেখানো পথ ধরে এবার বোরকা ও নেকাব নিষিদ্ধ করল বুলগেরিয়া।

তবে বোরকা নিষিদ্ধ করার আগে সাংসদদের মধ্যে ভোটের আয়োজন করা হয়। পার্লামেন্টে বিপুল জনসমর্থন পেয়ে বোরকা-নেকাব নিষিদ্ধ সংক্রান্ত আইন পাশ হয়েছে। ১৮৮ সাংসদের মধ্যে ১৮০ জনই এই আইনের পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

অফিস, স্কুল ও জনসম্মুখে মুখমণ্ডল পুরোপুরি বা আংশিক ঢেকে রাখার ওপর এই নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাব করে জাতীয়তাবাদী নির্বাচনী জোট পেট্রিওটিক ফ্রন্ট (পিএফ)। এই প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতেই বোরকা ও নেকাব নিষিদ্ধ করল বুলগেরিয়া।

সব প্রাতিষ্ঠানিক কার্যালয়, প্রশাসনিক, শিক্ষা ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের মতো জনসম্মুখেও এই আইন প্রয়োগ হবে। যদিও এই আইনের বিরোধীতা করেছেন বিরোধী দলের সাংসদরা। তাদের মতে, পার্লামেন্টে পাশ হওয়া এই নতুন আইন একটি রাজনৈতিক চুক্তির ফসল।

২০১৫ সালের নভেম্বরে প্যারিস হামলার পর ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী ম্যানুয়েল ভলস বিশ্ববিদ্যালয়ে মুসলিম নারীদের হিজাব নিষিদ্ধের আহ্বান জানিয়েছিলেন। এরপর থেকে ওই দেশের স্কুল ও সরকারি অফিসে নেকাব, হিজাব এবং যেকোনো ধরনের ধর্মীয় পোশাক পরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এদিকে চলতি বছরের মে মাস থেকে স্কুল, হাসপাতাল ও গণপরিবহনে নেকাব পরার ওপর আংশিক নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করেছে ডাচ সরকার। এই আইন অমান্য করলে ৩শ ইউরো পর্যন্ত জরিমানা দিতে হয় দেশটিতে।






মন্তব্য চালু নেই