মেইন ম্যেনু

বুড়িগঙ্গায় ট্রলারডুবি : নিখোঁজদের সন্ধান মেলেনি

নারায়ণগঞ্জের ডিক্রিরচরে বুড়িগঙ্গা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চের ধাক্কায় ইঞ্জিনচালিত ট্রলার ডুবে একই পরিবারের তিনজনসহ নিখোঁজ রয়েছে পাঁচজন। এখনো সন্ধান মেলেনি ডুবে যাওয়া ট্রলার ও নিখোঁজ যাত্রীদের। সময় যত যাচ্ছে স্বজনদের আহাজারী তত ভারি হচ্ছে।

শনিবার সকালে বক্তাবলীর রাধানগর লেংটা পাগলার ওরস থেকে ফেরার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নিখোঁজদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, শনিবার সকাল ৬টার দিকে সদর উপজেলার বক্তাবলী রাধানগর লেংটার পাগলার ওরস শেষে ৪০-৫০ জন যাত্রী নিয়ে বক্তাবলীর রাধানগর ঘাট থেকে ডিক্রিচর ঘাটে আসার পথে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী একটি লঞ্চ ধাক্কা দিলে ট্রলারটি ডুবে যায়। সে সময় নদীতে প্রচ- কুয়াশা ছিল। ট্রলারের অনেক যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠতে সক্ষম হলেও একই পরিবারের তিনজনসহ নিখোঁজ রয়েছে পাঁচজন। এ সময় আহত ১০ যাত্রীকে নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

নিখোঁজ ট্রলার যাত্রীরা হলেন- সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকার সেলিম খান, তার মেয়ে মৌসুমী আক্তার ও ছেলে ইমন খান, মুন্সীগঞ্জের পশ্চিম মোক্তারপুর এলাকার আব্দুল কাদির ও সেলিম মিয়া। তবে সেলিম মিয়ার ঠিকানা পাওয়া যায়নি বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক দিন মনি জানান, নিখোঁজদের খোঁজে নদীতে অনুসন্ধান চলছে। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা তল্লাশি চালাচ্ছে। তবে এখনো ডুবে যাওয়া ট্রলারটি শনাক্ত করা যায়নি।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল মালেক জানান, নিখোঁজদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। তবে এখনো জীবিত বা মৃত কাউকে পাওয়া যায়নি।






মন্তব্য চালু নেই