মেইন ম্যেনু

বেকিং সোডার এই ৫টি ব্যবহার আপনি জানেন কি?

ব্যস্ত এই সময়ে ত্বক কিংবা চুলের যত্ন নেওয়ার মত সময় হয়ে উঠে না। আর অযত্ন অবহেলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ে আমাদের ত্বক। ত্বক বা চুলের যত্নের জন্য খুব বেশি উপাদানের প্রয়োজন নেই। রান্নাঘরে রাখা বেকিং সোডা এই কাজটিকে আরও সহজ করে দিবে। বেকিং সোডা হল সোডিয়াম বাই কার্বোনেট যার অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি ফাঙ্গাল, অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টি ইনফ্লামেটরী বৈশিষ্ট্য রয়েছে। অল্প সময় ব্যবহারের জন্য এটি বেশ উপকারী। অতিরিক্ত ব্যবহারে ত্বক এবং চুলের ক্ষতি হতে পারে। ত্বক এবং চুলের যত্নে বেকিং সোডার কিছু প্যাক দেখে নিন আজ-

১। ব্রণ দূর করতে
এক চা চামচ বেকিং সোডা পানির সাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এবার পেস্টটি ব্রণের স্থানে লাগিয়ে নিন। ১ থেকে ২ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি দিনে দুই তিনবার করুন। ব্রণ কমে গেলে দিনে একবার করুন।

২। দাঁত সাদা করতে
টুথব্রাশে টুথ পেস্টের সাথে অল্প পরিমাণে বেকিং সোডা নিন। এবার এটি দিয়ে দাঁত ব্রাশ করুন। দিনে একবার এভাবে দাঁত ব্রাশ করুন। এছাড়া চার টেবিল চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, দুই চা চামচ বেকিং সোডা এবং তিন টেবিল চামচ বিশুদ্ধ নারকেল তেল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিতে পারেন। এই পেস্ট দিয়ে দাঁত ব্রাশ করুন।

৩। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে
বেকিং সোডা এবং এক টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এর সাথে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিতে পারেন। প্রথমে একটি ভাল ফেইসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। তারপর এই প্যাকটি ব্যবহার করুন। ১০ মিনিট পর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে দিবে।

৪। খুশকি দূর করতে
এক টেবিল চামচ বেকিং সোডা ভেজা চুলে লাগিয়ে নিন। এক মিনিট অপেক্ষা করুন তারপর পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার করুন। এছাড়া একটি লেবুর রস এবং এক চাচামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে চুলের তালুতে লাগান। ২ থেকে ৩ মিনিট পর পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটিও সপ্তাহে একবার করুন আর দেখুন খুশকি দূর হয়ে গেছে।

৫। চুল ঘন করতে
সিকি চামচ বেকিং সোডা শ্যাম্পুর সাথে মিশিয়ে নিন। এবার এটি ব্যবহার করুন। এটি চুলের ধুলো-ময়লা পরিষ্কার করার সাথে সাথে আপনার চুলকে ঘন সুন্দর করে তুলবে।






মন্তব্য চালু নেই