মেইন ম্যেনু

বেরোবিতে কাল অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা সম্পর্কে মতবিনিময়

এইচ.এম নুর আলম, বেরোবি প্রতিনিধি: রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) বিভিন্ন অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের সাথে মত বিনিময় করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান। আজ ৫ মার্চ ও কাল ৬ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনিয়ম তদন্তে গতকাল বিকেলে রংপুরে পৌঁছেন ইউজিসি চেয়ারম্যান।

আগামীকাল রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক,কর্মকর্তা,কর্মচারিদের সঙ্গে বিকেল ৩ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা বিষয়ে মত বিনিময় করবেন বলে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি বেরোবি রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইব্রাহীম কবীরকে এক চিঠির মাধ্যমে এ কথা জানানো হয়েছে।

চিঠিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক, কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক, উপাচার্য মহোদয়ের একান্ত সচিব এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারি সমিতির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদককে উপস্থিত রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, বিভিন্ন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক, প্রশাসনিক অনিয়ম, বিনা কারনে পদোন্নতি স্থগিত, বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো নির্মাণ সম্পন্ন বিষয়ে প্রশাসনের উদাসীনতা, কর্মকর্তা-কর্মচারিদের আপগ্রেডেশন, একাই অধিক পদে আসীন থাকাসহ নানা বিষয়ে অনিয়ম সম্পর্কিত সংবাদ বিভিন্ন জাতীয়, স্থানীয় ও অনলাইনে প্রকাশিত হলে সর্ব মহলে হইচই পড়ে যায়।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে ১০ম জাতীয় সংসদের শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ১৩ তম বৈঠকের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এ সম্পর্কিত তথ্য স্থায়ী কমিটিতে প্রতিবেদন উপস্থাপনের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক,কর্মকর্তা,কর্মচারিদের সাথে ইউজিসির চেয়ারম্যানের মতবিনিময়ের সিদ্ধান্ত হয় ।

এ দিকে তিন দিনই অনুষ্ঠানমালা দিয়ে রেখেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আগামীকাল ¯œাতক ১ম বর্ষেও নবীন বরণ। সোমবার ঐতিহাসিক ৭ মার্চ এবং ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এ দিন নামীদামী ব্যক্তিকেও আমন্ত্রণ জানিয়েছে প্রশাসন। তবে গত বছরে ঘটা করে নবীনবরণসহ এমন অনুষ্ঠানমালার কোনো আয়োজন করেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এমনকি রোকেয়া দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসেও তেমন চোখে পড়ার মতো তেমন আয়োজন ছিলো না।
অনেকেই মনে করেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর চেয়ারম্যান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা তদন্তে আসছেন তাই এ রকম তিনদিন ব্যাপী আয়োজনের সমাহার করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই