মেইন ম্যেনু

বেরোবিতে ভর্তি পরীক্ষায় অসদুপোয় অবলম্বন করায় এক পরীক্ষার্থীর কারাদন্ড

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ¯স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন অসদুপোয় অবলম্বনের কারনে এক পরীক্ষার্থীকে বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

দন্ডপ্রাপ্ত পরীক্ষার্থীর নাম মোঃ আল মাসুম পারভেজ। তাঁর পিতার নাম মোঃ আবকর আলী। সে ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার মাজাহিদাবাদ ইউনিয়নের বটতলী গ্রামের বাসিন্দা।

গত মঙ্গলবার রংপুর সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী মেজিস্ট্রেট মোঃ ফাউজুল কবীর এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম নাজিয়া সালতানা পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালত পরীক্ষার্থীটিকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও এক হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ডের এ রায় প্রদান করেন ।
এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোঃ মোর্শেদ উল আলম রনি, প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) মোঃ শাহিনুর রহমানসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর সূত্রে জানা যায়,দন্ডপ্রাপ্ত পরীক্ষার্থী গত মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত বিজনেস স্টাডিজ অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় নিজ কানে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস বসিয়ে বাইরে থেকে প্রশ্নের উত্তর লিখছিল। কক্ষের প্রত্যবেক্ষকগণের(পরিদর্শনকারী) সন্দেহ হলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

এক পর্যায়ে তার কানের ভেতর থেকে শব্দ শুনা যাওয়ায় প্রত্যবেক্ষকগণ তাকে তল্লাশী করে তার কানের ভেতরে ছোট একটি ইলেকট্রিক ডিভাইস দেখতে পান। বিষয়টি স্বীকার করলে ভ্রাম্যমান আদালত তাকে দন্ডবিধি আইনের ১৮৮ ধারায় তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন। একইসাথে এক হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ১৫ দিন কারাদন্ড ভোগের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

তবে কে বা কারা বাইরে থেকে প্রশ্নের উত্তর বলে দিয়েছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। অনুমান করা হচ্ছে এটি একটি বড় জালিয়াত চক্র। এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) মোঃ শাহিনুর রহমান জানান, দন্ডপ্রাপ্ত পরীক্ষার্থীকে রংপরের দমদমা বাজার থেকে অত্যাধুনিক ডিভাইস ব্যবহার করে উত্তর বলে দেওয়া হচ্ছিল এমন খবর পেয়ে পুলিশের একটি চৌকস দল ছুটে গেলে তার হদীস পাওয়া যায়নি।তবে চক্রটির অনুসন্ধানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ প্রশাসন এবং অন্যান্য কর্মকর্তারা তৎপর রয়েছেন। আগামী পরীক্ষায় এ ধরনের কর্মকান্ড ঠেকাতে প্রশাসন আরো কঠোর অবস্থানে থাকবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য যে, গতকাল সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৩ টা পর্যন্ত তিন শিফটে বিজনেস স্টাডিজ অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিট এবং জীব ও ভূ-বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘এফ’ ইউনটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই