মেইন ম্যেনু

বেরোবিতে শহীদ মুখতার ইলাহী হলের শুভ উদ্বোধন

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) ছাত্রদের আবাসনের জন্য ৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত শহীদ মুখতার ইলাহী হল উদ্বোধন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী আজ বুধবার বেলা ১১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ফিতা কেটে হলটির শুভ উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনকালে উপাচার্য তাঁর বক্তৃতায় বলেন, ‘আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আরেকজন মুক্তিযোদ্ধার নামে হল উদ্বোধন করতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছি।’ উপাচার্য শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘শহীদ মুখতার ইলাহী দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন, তোমাদেরকে এই হলের আবাসিকতার মাধ্যমে তাঁর রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজ তথা দেশের উন্নয়নে কাজ করতে হবে। সেজন্য শিক্ষা জীবনেই নিজেকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনটি আবাসিক হল চালুর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়টি পূর্ণতা পাচ্ছে। অচিরেই শিক্ষাবান্ধব অন্যান্য সুবিধাও নিশ্চিত করা হবে। তবে সকলকে সহনশীলতার মাধ্যমে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করতে হবে।

এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটরিয়া ও কেন্দ্রীয় মসজিদটিও চালু করা হবে বলে তিনি তাঁর বক্তৃতায় উল্লেখ করেন। হলের প্রভোস্ট (চলতি দায়িত্ব) মোঃ আমির শরীফের সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নেন বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মতিউর রহমান, কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সাইদুল হক, শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট ড. আবু ছালেহ মোহাম্মদ ওয়াদুদুর রহমান (তুহিন ওয়াদুদ), প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) মোঃ শাহিনুর রহমান ও শহীদ মুখতার ইলাহীর ছোট ভাই মাহফুজ ইলাহী। এর আগে উপাচার্য জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে পতাকা উত্তোলন করেন। এ সময় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

২০১০ সালে হলটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। পরে হলটির নাম ‘শহীদ মুখতার ইলাহী হল’ চুড়ান্ত করে ২০১১ সালের ১৭ মার্চ নামফলক উম্মোচন করা হয়। ৬ তলা বিশিষ্ট উক্ত হলে ৭০টি কক্ষ রয়েছে। প্রায় সাড়ে তিনশত ছাত্রকে আবাসিক সুবিধা দেওয়া হচ্ছে।

শহীদ মুখতার ইলাহী হলের আবেদনপত্র উত্তোলন ও জমাপ্রদানের তারিখ নির্ধারন করা হয় গত ২৩ আগস্ট থেকে ২৭ আগস্ট। ২৪০ টি আসনের বিপরীতে আবেদন পত্র জমা পড়ে ১ হাজার ১১৭ টি। সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয় গত ১৩ ও ১৪ সেপ্টেম্বর। ১ম পূর্ণাঙ্গ মেধা তালিকা প্রকাশ করা হয় ৬ অক্টোবর।

মেধা তালিকায় আসন বরাদ্দ দেওয়া হয় ৩৬০ জন ছাত্রকে। হল আবাসিকতার জন্য আবেদন পত্র জমাদান প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় গত ১১ থেকে ১৩ অক্টোবর। হল আবাসিকতার পত্র জমাদানের ভিত্তিতে ৩১৮ জনের আসন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, উদ্বোধনের পরবর্তী সপ্তাহে হলটির ২য় মেধা তালিকা প্রকাশের কথা রয়েছে। আগামী ১ নভেম্বর থেকে হলের ডাইনিং ব্যবস্থা চালু হবে ।






মন্তব্য চালু নেই