মেইন ম্যেনু

বেরোবির জনসংযোগ দপ্তরে হামলা, কর্মকর্তাকে মারধোর

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে(বেরোবি) চাঁদা না দেয়ায় তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলীকে পিটিয়ে আহত করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী বলে জানিয়েছে ঐ দপ্তরের অফিসার মোহাম্মদ আলী। তাকে বাঁচাতে এসে লাঞ্চিত হন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার (চলতি দায়িত্ব) মোরশেদ উল আলম রনি সহ আরও এক কর্মচারী। রবিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ দপ্তরে এ ঘটনা ঘটে ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রবিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা রাফিউল হাসানের নেতৃত্বে শাহিন সর্দার, শাহিন বেগ ও নুরুজ্জামান রুবেল(ভলকা রুবেল) জনসংযোগ দপ্তরে প্রবেশ করে। তারা জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলীর সাথে কথা বলার এক পর্যায়ে তাকে বেধরক পেটাতে থাকে এবং অফিসের চেয়ার-টেবিল ভাংচুর করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে সাথে সাথেই চলে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার (চলতি দায়িত্ব) মোরশেদ উল আলম রনি। তিনি মোহাম্মদ আলীকে বাঁচাতে চেষ্টা করায় তাকেও লাঞ্চিত করে রাফিউল বাহিনী। এ ঘটনার চাক্ষুষ সাক্ষীদের মধ্যে জনসংযোগ বিভাগের কর্মচারী জিয়াউর রহমানকে মাথায় আঘাত করে ভলকা রুবেল।
এদিকে মোহাম্মদ আলীর আঘাত গুরুত্বর হওয়ায় তাকে বিশ্বাবদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎষা দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আহত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী জানান, আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা রাফিউল হাসান, শাহিন সর্দার এবং কর্মচারী শাহিন বেগ ও রুবেল আমার রুমে এসে ৫০০০ টাকা চাঁদা দাবি করে। আমি তাদেরকে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা আমাকে গালিগালজ করে। আমি এতেও চাঁদা না দিলে তারা আমাকে মারতে শুরু করে এবং আমার অফিস ভাংচুর করে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার সময় রেজিস্টার মোরশেদ উল আলম রনি ও সহকারী প্রক্টর শাহীনুর রহমান উপস্থিত হন। তাদের উপস্থিতিতেও তারা আমাকে মারধর করে।

এদিকে অফিসে হামলা করে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মারধরের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহনে রেজিস্টার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী।

জানতে চাইলে রেজিস্টার মোরশেদ উল আলম রনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি সেখানে গিয়ে শুনতে পাই তারা (চাঁদাবাজরা) জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলীর কাছে চাঁদা করছে। তিনি চাঁদা না দেয়ায় তারা তাকে মারধর করে ও অফিস ভাংচুর করে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন,‘এ কথা বলাই যায় যে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।’

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর শাহীনুর রহমান জানান, আমিও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলীকে মারধর করতে দেখি। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে বলে জানান তিনি।

এদিকে তিনজনকে আটকের কথা বললেও বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে একজনকে দেখা যায়। আর বাকি দুইজনকে ক্যাম্পাসে বাইকে ঘুড়তে দেখা গেছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, আটককৃতরা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টাফ। তারা ক্যাম্পাস ছেড়ে পালবে না। যেকোনো সময় ডাকলে তারা চলে আসবে। তাই তাদের হেফাজতে রাখা হয়নি।এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত জানা যায়, তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

তবে রবিবার জনসংযোগ অফিসার মোহাম্মদ আলীর বিরুদ্ধে ১৫ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুকে কটুক্তি করার অভিযোগ এনে রেজিস্টার বরাবর এক অভিযোগ পত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে অভিযুক্তরা।ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অফিস কর্মকর্তা(গ্রেড সেকশন-২)মোঃ শাহীন সর্দার,রেজিস্টার দপ্তরের কর্মকর্তা(গ্রেড সেকশন-২)মোঃ রাফিউল হাসান,মোঃ নুরুজ্জামান রুবেল(ভলকা রুবেল) এবং মোঃ শাহীন বেগ স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ কথা জানানো হয়।তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,এ রকম কোনো কথাই তিনি বলেন নি।

এর আগে ১৩ আগস্ট একই অভিযোগ এনে ৫ ছাত্রলীগ নেতা বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলমের নিকট ১০ কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে বলে অভিযোগ ওঠে এবং তা অনলাইন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।পরে এটা নিয়ে দেশব্যাপী হইচই ওঠে।

শাহীন সর্দার রবিবার এক অভিযোগ পত্রে জানান, গত সিন্ডিকেটে ৮১ জন কর্মকর্তা-কর্মচারির পদায়ন হলে জনসংযোগ দপ্তরে মোঃ আমিনুর রহমান নামে এক কর্মচারির পদায়ন হয়।কিন্তু তিনি ২৮ মাস ধরে অফিস না করেও বেতন সুবিধাদি ভোগ করছেন।ঐ কর্মচারির উৎকোচের মাধ্যমে পদায়নে জনসংযোগ অফিসার মোহাম্মদ আলী সহযোগিতা করেছেন বলে তিনি লিখিত পত্রটির মাধ্যমে অভিযোগ জানান।
তবে জনসংযোগ অফিসার এ সব অভিযোগপত্র নাকচ করে দিয়ে বলেন, আমি বারবার এ ব্যাক্তির বেতন বন্ধের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষকে বলেছি এবং রেজিস্টার অফিসে তার অনুপস্থিতির কথা জানিয়েছি।






মন্তব্য চালু নেই