মেইন ম্যেনু

বেসরকারি খাত উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে ঋণচুক্তি

লাইসেন্সপ্রাপ্ত ইকোনোমিক জোনগুলোর সার্বিক উন্নয়নসহ বেসরকারি খাত শক্তিশালী করতে বিশ্বব্যাংক ১৩ কোটি ডলার ঋণ দেবে। ৭৮ টাকা বিনিময় হারে বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১ হাজার ১৪ কোটি টাকা।

রোববার সকালে শেরেবাংলা নগর অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সম্মেলন কক্ষে এ বিষয়ে ঋণচুক্তি স্বাক্ষর হয়।

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে ইআরডির অতিরিক্ত সচিব কাজী শফিকুল আযম ও সংস্থাটির পক্ষে বিশ্বব্যাংক ঢাকা অফিসের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক প্রতিনিধি রাজশ্রী এস পারাকার এতে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, লাইসেন্সপ্রাপ্ত ইকোনোমিক জোনগুলোর সার্বিক উন্নয়নসহ বেসরকারি খাত শক্তিশালী করতে বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের মধ্যে সম্প্রতি ১৩ কোটি ডলারের ঋণচুক্তির বিষয়ে সম্মতি চুক্তি হয়। ‘প্রাইভেট সেক্টর ডেভলপমেন্ট সাপোর্ট প্রজেক্টে’ এর আওতায় এই ঋণ দেবে সংস্থাটি।

আজ রোববার সম্মতির বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষর হলো।

চুক্তির আওতায় একটি গুচ্ছ প্রকল্প রয়েছে। এর আওতায় চারটি উপপ্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। সাপোর্ট টু ক্যাপাসিটি বিল্ডিং অব বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোন অথরিটি, সাপোর্ট টু ক্যাপাসিটি বিল্ডিং অব বাংলাদেশ ইকোনোমিক জোন অথরিটি, বাংলাদেশ ইকোনোমিক জোন ডেভলপমেন্ট প্রজেক্ট এবং সাপোর্ট টু ডেভলপমেন্ট অব কালিয়াকৈর হাইটেক পার্ক প্রকল্পের উন্নয়নে টাকা ব্যয় করা হবে।

প্রকল্পের আওতায় নতুন ইকোনোমিক জোন উৎপাদনমুখী করা বেসরকারি ইকোনোমিক জোন তৈরির লক্ষ্যে গুচ্ছ প্রকল্পটি অবদান রাখবে।

জোন-সংশ্লিষ্ট অবকাঠামো নির্মাণ এবং চাহিদা তাড়িৎ দক্ষতা বৃদ্ধি ও জোনগুলোর সামাজিক ও পরিবেশগত উন্নয়ন করা হবে। প্রকল্পের মোট ব্যয় ১৩৭ মিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে বিশ্বব্যাংক ঋণ দেবে ১৩০ মিলিয়ন বা ১৩ কোটি ডলার। বাকি টাকা সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে নির্বাহ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই