মেইন ম্যেনু

‘বোমা ছিল বিমানটিতেই’

মিশরের সিনাই উপদ্বীপে রাশিয়ার যাত্রীবাহী বিমান দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে বোমা বিস্ফোরণের তত্ত্বটি পুনর্দাবি করল ব্রিটেন। ব্রিটেনের তদন্তকারীরা শুক্রবার দাবি করেছে, উড্ডয়নের আগে বিমানটির ভেতরেই ওই বোমা ছিল।

এর আগেও ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্র একই দাবি করে আসছিল। তবে বরাবরের মতো মিশর ও রাশিয়া এ দাবি নাকচ করে দেশ দুটিকে এ ব্যাপারে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে।
গত ৩১ অক্টোবর মিশরের শারেম আল শেখ বিমানবন্দর থেকে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবাগ যাওয়ার পথে মিশরের সিনাই উপদ্বীপে মেট্রোজেট এয়ারবাস এ৩২১ বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। দুর্ঘটনায় বিমানে থাকা ২২৪ জন যাত্রী ও ক্রু নিহত হয়। যাত্রীদের অধিকাংশই রাশিয়ার পর্যটক।

দুর্ঘটনার পরপরই ইসলামী স্টেট (আইএস) ঘটনার দায় স্বীকার করে। যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনও অনেকবার বলে এসেছে এ হামলার সঙ্গে সন্ত্রাসীদের যোগসূত্রতা থাকতে পারে। তবে তাদের দাবি নাকচ করে দিয়েছে রাশিয়া ও মিশর বলেছে, এখনো তদন্ত চলছে, দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় এখনো আসেনি।

ব্রিটেনে অবস্থানরত মিশরের প্রেসিডেন্ট সিসিও বলেছেন, আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদল নিয়ে এবং সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার সঙ্গে তদন্ত হচ্ছে। এ ব্যাপারে কোনো কিছুই গোপন করা হবে না।
বিবিসির নিরাপত্তা প্রতিবেদক ফ্রাঙ্ক গার্ডনার বলেছেন, ব্রিটেনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তাদের তদন্ত সহায়তাকারী দল বিমানটিতে কোনো যান্ত্রিক ত্রুটি খুঁজে পাননি। যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়া অসম্ভব।

যুক্তরাজ্যের জয়েন্ট টেররিস্ট এনালাইসিস সেন্টার (জেটিএসি) গত কয়েকদিন ধরে বিমান দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে নানা হিসাব-নিকাশ করে আসছে। তবে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণটি তারা উড়িয়ে দিয়েছে। তাদের ধারণা, কেউ একজন বিমানটিতে আগেই বোমা বহন করে নিয়ে গেছেন। কারো লাগেজে বা বিমানটির কমপার্টমেন্টে বোমটি থাকতে পারে।

দুর্ঘটনার পর আইএস দায় স্বীকার করলে কীভাবে তারা বিমানটি বিধ্বস্ত করেছে সে সম্পর্কে কিছু বলেনি।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন।






মন্তব্য চালু নেই