মেইন ম্যেনু

বোরখা পরে স্কুলে আসায় ছাত্রীকে বেত্রাঘাত

বোরখা পরে স্কুলে আসার কারণে বরিশালের অগৈলঝাড়া উপজেলার অর্ন্তভূক্ত পয়সা মাধ্যমিক স্কুল এন্ড কলেজের হাবিবা আক্তার নামের এক ছাত্রীকে বেতের আঘাত করেছে ওই স্কুলের ইসমতারা বেগম নামের শিক্ষিকা।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয় সাংবাদিক সমিতিতে এমন অভিযোগ নিয়ে হাজির হয় ওই শিক্ষার্থীর ভাই আব্দুর রহমান (রনি)। সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী।

অভিযোগ আকারে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, তারা বোন সব সময়ই বোরখা পরে স্কুলে যায় কিন্তু ওই স্কুলের ইসমতারা বেগম নামের এক শিক্ষিকা সবাইকে বোরখা পরে আসতে নিষেধ করে। তারপরও ৫ জন মেয়ে নিয়মিত বোরখা পরে আসত। গত ৯ তারিখে ওই শিক্ষার্থীরা বোরখা পরে আসলে শিক্ষিকা রেখে এক পর্যায়ে বেত দিয়ে মারতে শুরু করে। পরে ওই শিক্ষার্থী ও বোরখা পরা মেয়েদের স্কুল থেকে বের করে দেয়। ওই ছাত্রী আবার ১০ তারিখে স্কুলে শিক্ষিকা আসলে আবার তাকে স্কুল থেকে বের করে দেয়।

ওই ছাত্রীর ভাই আরো বলেন,মঙ্গলবার ওই শিক্ষিকা স্কুলে ঘোষণা দিয়েছে হাবিবা আসলেই তাকে মার দেয়া দেওয়া হবে। এছাড়া এলাকার যুবলীগ নেতার ভাবী বলে ওই শিক্ষিকা পরিচিত। এই ভয়ে আমাদের পরিবারের কেউ স্কুলে গিয়ে কিছু বলতে পারছে না। ওই শিক্ষিকার ভয় দেখানোর কারণে আমরা আমার বোনকে নিয়ে ভয়ে আছি বলে তিনি অভিযোগ করেন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রথমে কথা বলেন। সাংবাদিক পরিচয় দেওয়া পরে তিনি ব্যাস্ত বলে ফোন কেটে দেন। এক ঘন্টা পর আবার তাকে বেশ কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি আর ফোন ধরেন নি।

অভিযুক্ত শিক্ষিকার সাথে ফোনে কথা হলে তিনি বলেন,যা কিছু হচ্ছে গ্রামের রাজনৈতিক কারণে হচ্ছে। তবে ক্লাসে শিক্ষক হিসাবে তাদের পোশাকের বিষয়ে বলেছি সবাইকে স্কুলের নিয়ম অনুযায়ী সবাই পোশাক পরে আসতে। তোমরা যে কয়েকজন বোরখা পরে আসো তোমরা সাদা স্কার্ফ পরে আসবে। এর বেশি কিছু হয় বলে তিনি দাবি করেছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই