মেইন ম্যেনু

বৌয়ের ওজন বাড়াতে ফানেল দিয়ে খাবার খাওয়ান স্বামী!

মনিকা রিলে। বয়স ২৭। এরই মধ্যে তার ওজন গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৩১৭ কেজিতে। এই ওজনকে ৪৫৪ কেজিতে নিয়ে যেতে চায় সে। নিজেকে বিশ্বের সবচেয়ে স্থুলকায় নারী হিসেবে দেখতে চায় মনিকা। আর এতে আপত্তি তো দূরের কথা, উচ্ছ্বসিত তার স্বামী সিড। স্ত্রীর ওজন বাড়াতে তাই তিনি তাকে ফানেল দিয়ে নিয়মিত চর্বি ও চিনিযুক্ত খাবার খাইয়ে যাচ্ছেন।

মনিকার ইচ্ছা বিশ্বের সবচেয়ে স্থুলকায় নারী হয়ে ইতিহাসে নিজের নামটা খোঁদাই করে লেখা। এখনই হাঁটা-চলা, বাথরুম, খাওয়া- সবকিছুতে সিডের সাহায্য নিতে হয় মনিকার। তবে তাতে তাদের দু’জনের কেউই অখুশি নন। সিডও নিয়মিত স্ত্রীকে মোটা বানাতে নানারকম মুখরোচক চর্বিযুক্ত খাবার তৈরি করছেন। স্ত্রীর সামনে সাজিয়ে রাখছেন বিভিন্ন স্নাকস ও শর্করাযুক্ত খাবার।

খেতে অরুচি ধরলে ফানেলের মাধ্যমে গলার মধ্যে সরাসরি তরল খাবার ঢেলে দিচ্ছেন। পুরো বিষয়টি নিয়ে তারা বেশ উচ্ছ্বসিত। স্থুল নারীরা যেমন স্লিম হওয়ার জন্য নানা কষরত করে, মনিকা যেন ঠিক তার উল্টো। ২৪ ঘন্টা সে চর্বি ও চিনিযুক্ত খাবার খেয়ে যাচ্ছে। ঘুমও নেই বলা যায়। ফাঁকে ফাঁকে ঘুম আর উঠেই নানা ভারী খাবারে উদরপূর্তি করাটাই যেন তার দিনের রুটিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মনিকার পরিকল্পনা- সে এটা চালিয়ে যাবে যতক্ষণ না সে বিছানানির্ভর না হয়ে পড়ে এবং সিডের উপর পুরোপুরি নির্ভরশীল না হয়। সিডও তাকে উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে। নিয়মিত আইসক্রিম খাওয়াচ্ছে স্ত্রীকে মোটা বানাতে। যেখানে অধিকাংশ পুরুষ তার সঙ্গীর জীবনের ঝুঁকির কথা চিন্তা করে স্লিম হওয়ার পরামর্শ দেয়, সেখানে সিড মনিকার জন্য খাবার তৈরি করছে এবং ফানেলের মাধ্যমে চর্বিযুক্ত তরল খাবার খাওয়াচ্ছেন।

মনিকার আশা, তিনি মোটা হয়েও আনন্দময় যৌনজীবন যাপন করে দেখিয়ে দিতে চান। এই মুহূর্তে ৯১ ইঞ্চি কোমর নিয়েও তিনি সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন। সেটা আরও বাড়লেও তাদের ভালবাসা কমবে না বলে মনিকার দৃঢ় বিশ্বাস।

আর তাই ২৪ ঘণ্টা স্নাকস খেয়ে চলেছেন। মনিকা বলেন, ”আমার পরিকল্পনা ওজনকে ১০০০ পাউন্ড (৪৫৪ কেজি) করা এবং নড়নক্ষমতাহীন করা। এবং এটা হতে পারলে আমি নিজেকে রানী মনে করবো। কারণ সিড বিষয়টা নিয়ে খুবই উৎসুক।”






মন্তব্য চালু নেই