মেইন ম্যেনু

ব্যথা উপশম করবে যে ৭টি খাবার

ব্যথা হলে সাধারণত আমরা কি করি? পেইন কিলার খাই, নয়তো এই ব্যথা নিয়েই ঘুমিয়ে পড়ি। পেইন কিলার বা ব্যথানাশক ঔষধ বেশি খাওয়া উচিত নয়। এটি কিডনির জন্য ক্ষতিকর। ব্যথা যদি খাবার খেয়ে দূর করা যায় তবে কেমন হয় বলুন তো? বিজ্ঞানীরা কিছু খাবারের সন্ধান পেয়েছেন যা দেহের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

১। আদা

হাজার বছর হতে আদা পেটের ব্যথা থেকে শুরু করে শরীরের নানা ব্যথা দূর করে থাকে। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে ব্যক্তি প্রতিদিন আদার ক্যাপসুল খেয়েছেন তাদের মাসল ব্যথা ১১ দিনের মধ্যে ২৫% কমে গেছে। এমনকি আরেক গবেষণায় দেখা গেছে আদার ইনজেকশন হাঁটু ব্যথা নিরাময়ে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। প্রতিদিনকার খাদ্য তালিকায় এক টুকরা আদা রাখুন। চাইলে আদা চাও খেতে পারেন।

২। কফি

গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত ২০০ মিলিগ্রাম ক্যাফিন পান করলে মাথাব্যথা এমনকি ম্যাগ্রেইনের ব্যথাও অনেক কমে থাকে। তবে দীর্ঘসময়ের জন্য এটি ভাল ফল দেয় না। আরেক গবেষোণায় দেখা গেছে কফি ব্যায়ামজনিত ব্যথা দূর করে থাকে।

৩। চেরী

ইউরিক এসিডের কারণে পায়ের গিঁট ফুলে যেয়ে ব্যথা হয়ে থাকে। এই ধরণের সকল ব্যথা বা গেঁট বাতের ব্যথা কমাতে চেরী ফল অনেক বেশি কার্যকরী। চেরীতে অ্যান্টি – ইনফ্লামেন্টরী এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান আছে যা শরীরের বিভিন্ন ব্যথার উপশম করে থাকে।

৪। রসুন

রসুনের অ্যান্টি-ইনফ্লামেন্টরি উপাদান ব্যথা দূর করে থাকে। এক টুকরা রসুন চেঁছে অলিভ অয়েলের সাথে মিশিয়ে গরম করে জয়েন্ট পেইনের স্থানে লাগান। দেখবেন সাথে সাথে ব্যথা কমে গেছে।

৫। হলুদ

গবেষণায় দেখা গেছে হলুদ দেহের প্রদাহ রোধ করে ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। হলুদে কারকিউমন উপাদান আছে যার কারণে হলুদের রং হলুদ হয়ে থাকে। এটি ক্যান্সার দূরের উপকরণ হিসেবেও কাজ করে থাকে।

বিশ্বব্যাপি এই খাবারগুলো ব্যথা নিরাময়ক হিসেবে পরিচিত। এছাড়া আরও কিছু খাবার আছে যেমন আনারস, গ্রিণ টি, ওটস, কমলা ইত্যাদি যা ব্যথা দূর করে থাকে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই