মেইন ম্যেনু

ব্লগার নিলয় হত্যা : প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে যা বললেন তসলিমা নাসরিন

গতকাল রাজধানীর খিলগাঁওয়ের পূর্ব গোড়ানে খুন হওয়া ব্লগার নীলাদ্রী চট্টোপাধ্যায় নিলয়ের হত্যকান্ড বিষয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন বাংলাদেশ থেকে নির্বাসিত এবং বহুল বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসিরন। নিলয় নীলের প্রসংশা এবং এহেন হত্যাকান্ডে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে বেশ কটাক্ষ ভঙ্গিমায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি স্ট্যাটাসটি দিয়েছেন। আর শনিবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে তসলিমা তার ফেসবুক পেজে স্ট্যাটাসটি দেন।

তসলিমা নাসরিন তার দেয়া স্ট্যাটিাসে ব্লগার নিলয় সম্পর্কে লিখেছেন, নিলয় নীলের পুরো নাম নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায়। বয়স ৩০। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিলোসফিতে মাস্টার্স করেছিল। প্রচুর পড়াশোনা করতো। ভালো লিখতো। শিক্ষিত। সচেতন। আজ তার ঘরে পড়ে আছে তার বই আর তার রক্ত।

তাসলিমা বলেন, তুমি যদি খুব পড়ো, খুব বোঝো, তুমি যদি মুক্তচিন্তায় বিশ্বাস করো, তুমি যদি প্রশ্ন করো, তোমার রক্তে এভাবেই ভেসে যাবে ঘর। সুতরাং বাংলাদেশে বাঁচতে হলে তোমাকে বোকা হতে হবে, বুদ্ধিমান হলে চলবে না। তোমাকে ধর্মভীরু হতে হবে, তোমাকে ধর্মমুক্ত হলে চলবে না। তোমাকে অমানুষ হয়ে থাকতে হবে, মানুষ হলে চলবে না।

এর আগে আজ বেলা সোয়া ১১ টার দিকে তসলিমা নাসিরন অন্য একটি স্ট্যাটাসে বলেন, আনসারুল্লাহ বাংলা টিম ইতিমধ্যে ঘোষণা করে দিয়েছে তারা নিলয় নীলকে খুন করেছে। এর আগেও খুন করে এসে একইরকমভাবে সদর্পে ঘোষণা করেছিল তারাই খুনী। এবার শেষ হাসিনা কী করবেন? খুনীদের বাড়িতে ডাকুন। মিষ্টি মুখ করান। পারলে পোলাও মাংস খাওয়ান। নেক্সট কে জিজ্ঞেস করুন। মোট ক’জন ট্যালেন্টেড ব্লগারকে খুন করার প্ল্যান করেছে জানুন। ওদের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা দিন। বলুন, বাবারা ভয় নেই, আমি আছি।

তিনি লেখেন, অবশ্য আমার বলার দরকার কী। হাসিনার আশ্বাস খুনীরা পেয়েছে বলেই তো এত সহজে খুনের পর খুন করে যেতে পারে।

তাসলিমা আরো লেখেন, আমি অপেক্ষা করে আছি হাসিনাকে কবে ওরা কোপাবে। নীলের মাথা থেকে যত রক্ত গড়িয়েছে, হাসিনার মাথা থেকে তো তত রক্তই গড়াবে, কিছু কম তো নয়! রক্ত দেখতে দেখতে আমাদের এখন অভ্যেস হয়ে গেছে। আমরা এতটুকু বিস্মিত হবো না।






মন্তব্য চালু নেই