মেইন ম্যেনু

ভবনটি উড়িয়ে দেয়ার মতো বিস্ফোরক ভেতরে ছিল

রাজধানীর শাহ আলী থানা এলাকার ছয় তলা ভবনটি থেকে দুপুর পর্যন্ত ১৬টি গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে। এগুলো ধীরে ধীরে পার্শবর্তী খোলা জায়গায় নিষ্ক্রিয় করা হচ্ছে।দুপুর দেড়টার মধ্যে এগুলোর মধ্যে ৬টি নিষ্ক্রিয় করা হয়।বাকিগুলো নিষ্ক্রিয় করার কাজ চলছে।

এ প্রসঙ্গে জঙ্গি প্রতিরোধ কমিটির অন্যতম সদস্য গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সানোয়ার হোসেন বলেছেন, ঝুঁকি নিয়ে এসব গ্রেনেড ভবনটি ছয় তলা থেকে পার্শবর্তী খোলা জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এগুলো বোম ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা নিষ্ক্রিয় করছে। তবে যে পরিমান বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে তা নিয়ে গোটা ভবনটি উড়িয়ে দেয়া সম্ভব।উদ্ধারকৃত বোমা ও গ্রেনেডগুলোর সবই হাতে তৈরি।জেএমবির সামরিক শাখার সদস্যরা ভবনের ছয় তলায় একটি ফ্লাট ভাড়া নিয়ে জঙ্গি কার্যক্রম চালাচ্ছিল।

তবে গ্রেনেডগুলো এই ভাড়া বাসায় বানানো হয়েছে কি না তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।গ্রেপ্তারকৃত সাত জনই জেএমবির সামরিক শাখার সদস্য।এদের মধ্যে তিন জনই সামরিক শাখার গুরুত্বপূর্ণ সদস্য।

গতকাল বুধবার রাত একটা থেকে পুলিশ ছয় তলা বিশিষ্ট এই ভবনটি ঘিরে রাখে এবং সকাল ১০টার দিকে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারে অভিযানে নামে।পরে সাত জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।তাদেরকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।তাদের জিজ্ঞাসাবাদে বিস্তারিত জানা যাবে।এর আগে গ্রেপ্তারকৃত এক জেএমবি সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদের পর মিরপুরের এই বাড়িটির খোঁজ পায় পুলিশ।পরে পুলিশ অভিযানের সিদ্ধান্ত নেয়।শেষ পর্যন্ত সফলভাবেই অভিযান শেষ হয়।






মন্তব্য চালু নেই