মেইন ম্যেনু

ভাইতাহিরপুরে ৭টি ইউনিয়নে আজ নির্বাচন

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় ৭টি ইউনিয়নে ৬ষ্ঠ ধাপে (৪জুন) নির্বাচন। এ লক্ষ্যে উপজেলা নির্বাচন কমিশন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। উপজেলার তাহিরপুর সদর,বাদাঘাট, বালিজুরী, উত্তর বড়দল, দক্ষিন বড়দল, উত্তর শ্রীপুর,দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রয়োজনীয় সকল সরঞ্জাম পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে ভোট কেন্দ্রে সুষ্ট,সুশৃংখল পরিবেশ বজায় রাখার জন্য নিশ্চিদ্র নিরাপত্ত ব্যবস্থা। দীর্ঘ দিন নির্বাচনী প্রচার-প্রচারনার পর গতকাল মধ্য রাত থেকে বন্ধ হয়েছে প্রার্থীদের গনসংযোগ ও মাইকের প্রচার-প্রচারনা সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রার্থীদের। এখন প্রার্থীদের মাঝে বিরাজ করছে এখন উৎবেগ আর উৎকণ্ঠা। এবার উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে বিএনপি ও আ,লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী,দু-দলের বিদ্ধোহী প্রার্থী সহ ৪৯জন চেয়ারম্যান প্রার্থী,সাধারন ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ৬৩ ওয়ার্ডে ২শত ৭৫জন এবং সংরক্ষিত মহিলা ২১ ওয়ার্ডে ৯০জন নির্বাচনে প্রতিদন্ধীতা করছে। তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবদল আহাবায়ক বোরহান উদ্দিন,বাদাঘাট ইউনিয়নে-বিএনপির দলীয় প্রার্থী বিএনপি নেতা আবু সায়েম,উত্তর বড়দল ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আবুল কাশেম দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকায় একক ভাবে নিজের শক্ত অবস্থান নিয়ে আছেন। অন্য ইউনিয়ন গুলোতে দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থীদের ছড়া ছড়ি।

এছাড়াও উপজেলায় আলোচনা সমালোচনার জন্ম দিয়েছে বাদাঘাট ইউনিয়নে চির প্রতিদন্ধী দু-পরিবারে ৪সহোদর নির্বাচনে নির্বাচন করায়। এবার কোন পরিবারের সদস্য পাচ্ছে চেয়ারম্যানের চেয়ার। এ দৃশ্য দেখার জন্য উপজেলা বাসী অধির আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় আছে। তাহিরপুর সদর ইউনিয়নে এবার দু-দলের ২জন,আ,লীগের দলীয় বিদ্রোহী ৩,স্বতন্ত্র ৫জন প্রার্থী চেয়ারম্যান এবং দক্ষিন বড়দলে বিএনপি,আ,লীগের প্রার্থী,দু-দলের দলীয় বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র সহ ১০জন প্রার্থী। এবার নির্বাচনে দু-দলের প্রতিটি ইউনিয়নে ৩-৪জন দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে প্রতিদন্ধীতা করায় আরো বেশি অস্থিরতার মধ্যে রয়েছে দু-দলের বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। ভোটারা এখন প্রতীক নয় যোগ্য প্রার্থী বিবেচনা করে ভোট দিতে চিন্তা-ভাবনা করছে। ফলে এখন উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের চা-ষ্টল ও রাস্তা ঘাটে তৃন্যমূলের নেতাকর্মী ও সাধারন ভোটরদের মুখে মুখে এখন একটি কথা যোগ্য প্রার্থীকে আমরা জনগনেই এবার ভোটের মাধ্যমে মূল্যায়ন করব। যদি আমরা আমাদের ভোট সঠিক ভাবে আমরাই দিতে পারি।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন জানান,ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আবাধ,শুষ্ট ও শান্তিপূর্ন ভাবে করা জন্য পুলিশ,বিজিবি,আনসার ও র‌্যাবের নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে এবার নির্বাচন শুষ্ট ও শান্তিপূর্ন ভাবে হবে আশা করি।

তাহিরপুর থানার ওসি ও তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ হানিফ জানান,উপজেলার ৬৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ৪০টি কেন্দ্র যুকিপূর্ন রয়েছে। সে গুলোকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে ৪জন পুলিশ ও ২জন আনসার সদস্য থাকবে। পাশা পাশি বিজিবি,ব্যার ও আমাদের মোবাইল টিম নিরাপত্তার স্বার্থে কাজ করবে।






মন্তব্য চালু নেই