মেইন ম্যেনু

ভারতকে ‘চিন্তায়’ ফেলেছেন সাঙ্গাকারা

পাঁচ বছর পর শ্রীলঙ্কায় টেস্ট খেলতে যাচ্ছে ভারত। ২০১০ সালে সর্বশেষ সিরিজে আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন মুত্তিয়া মুরালিধরন, তার ৮০০ উইকেটের অপেক্ষা, বীরের মতো বিদায়ী আয়োজন। আর এবার যেমন কুমার সাঙ্গাকারাকে নিয়ে লঙ্কানদের সব আয়োজন। ক্রিকেট বিশ্ব আরেক কিংবদন্তির বিদায় দেখবে আসন্ন এই সিরিজেই। ভারতের জন্য কী রইল? তারা কি শুধু উপলক্ষ হয়েই থাকবে? মোটেই না, অধিনায়ক হিসেবে বিরাট কোহলির এটিই যে প্রথম তিন ম্যাচের সিরিজ। সাঙ্গাকারার বিদায়ে ব্যাটসম্যান হিসেবে হয়তো তিনিও আলোড়িত হবেন, কিন্তু মনের কোণে নিশ্চিত সিরিজটা তার নিজের করে নেওয়ারই অপেক্ষা।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে ভারতের জন্য সেটি আবার শুধু কঠিন নয়, প্রায় অসম্ভবও। ২২ বছর আগে মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের দল একবার তা করে দেখিয়েছিল, আর পারেননি কোনো ভারতীয় অধিনায়ক। কোহলির জন্য শুরুতেই তাই দারুণ মঞ্চ, কঠিন পরীক্ষাও। প্রায় অধরা জয় ধরতে ব্যাটসম্যান না বোলারদের অগ্রাধিকার দিয়ে তিনি দল সাজাবেন, শ্রীলঙ্কার মাটিতে সেটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। নিষ্প্রাণ উইকেটের কারণে দুই দলের টেস্ট ড্র হয়েছে ১৮ টেস্টের ৮টিই। তবে পাকিস্তান মাত্রই শেষ হওয়া সিরিজে ২-১-এ হারিয়ে গেছে স্বাগতিকদের। ইয়াসির শাহর স্পিনের উত্তর খুঁজে পায়নি লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। ভারতীয় স্পিনারদের জন্য সেটি সুখবরই। তবে ক্যারিয়ারের শেষ দুই টেস্ট স্মরণীয় করে রাখতে সাঙ্গাকারা একাই যে বড় দেয়াল তুলে দাঁড়াবেন না, কে বলতে পারে? রবিচন্দ্রন অশ্বিনও মনে করছেন লঙ্কান এই কিংবদন্তিই হবেন তাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ, ‘সাঙ্গাকারা যেকোনো বোলারের জন্যই বড় চ্যালেঞ্জ। সে হলো একজন কিংবদন্তি। এই সিরিজে আমাকে তাই শতভাগ উজাড় করেই খেলতে হবে।’

উল্লেখ্য, গল ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ১২ আগস্ট শুরু হবে ভারত ও শ্রীলংকার মধ্যকার তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্ট শুরু হবে যথাক্রমে ২০ ও ২৮ আগস্ট থেকে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্ট শুরু হবে যথাক্রমে ২০ ও ২৮ আগস্ট থেকে। দ্বিতীয় টেস্টটি হবে কলম্বোর পি সারা ওভালে। আর এই টেস্টের মধ্য দিয়েই টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন কুমার সাঙ্গাকারা। উঠে যাবেন ইতিহাসের পাতায়।






মন্তব্য চালু নেই