মেইন ম্যেনু

ভারতকে বর্জনের পরামর্শ মিয়াঁদাদের

ভারত যদি পাকিস্তানের সঙ্গে ডিসেম্বরে প্রস্তাবিত দ্বিপাক্ষিক সিরিজে খেলতে অস্বীকৃতি জানায় তবে আগামী বছর ভারতে অনুষ্ঠিতব্য টি-২০ বিশ্বকাপে দল না পাঠানোর জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি) পরামর্শ দিয়েছেন দেশটির সাবেক কিংবদন্তী তারকা জাভেদ মিয়াঁদাদ।

বুধবার এক সাক্ষাৎকারে জাভেদ মিয়াঁদাদ বলেন, ‘পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে আমার পরামর্শ হলো এটা পরিষ্কার করে দেয়া যে, যদি ভারত সরকার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে ছাড়পত্র না দেয় তবে আমাদের সরকারও আগামী বছর ভারতে টি-২০ বিশ্বকাপে অংশ নিতে দল পাঠানোর অনুমতি দিবে না।’

সম্মান ও আত্মমর্যাদাকে বড় করে দেখছেন পাকিস্তানের এই কিংবদন্তী তারকা, ‘আমাদের এখন আত্মমর্যাদা ও অহংকারকে প্রাধান্য দিয়ে ভারতীয় বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। ভারতে টি-২০ বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার চেয়েও আমার আত্মসম্মানবোধ ও গর্ব অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

পাকিস্তানের হয়ে ১৯৭৬ সাল থেকে ১৯৯৩ পর্যন্ত ১২৪টি টেস্ট খেলা জাভেদ মিয়াঁদাদ জানান, ভারতের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ না খেললেও পাকিস্তানের ক্রিকেটের পথচলা বন্ধ হয়ে যাবে না।

বড়ে মিয়াঁ বলেন, ‘আমাদের এখনই কার্যকরী পদক্ষেপ নিবে হবে এবং ভারতকে বলতে হবে, যথেষ্ট হয়েছে। আমরা ২০০৭ সাল থেকে তাদের (ভারত) বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলা ছাড়াই টিকে আছি। সুতরাং আমাদের কেন তাদের মাটিতে গিয়ে আইসিসির ইভেন্টে অংশ নিতে হবে?

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালের পর থেকে পাকিস্তানের বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ দ্বিপাক্ষিক সিরিজে অংশ নিচ্ছে না পাকিস্তান। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সাবেক সভাপতি জগমোহন ডালমিয়া বেঁচে থাকার সময় দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ চালুর উদ্যোগ নেন। ডালমিয়ার মৃত্যুর পর বিসিসিআইয়ের নতুন সভাপতি শশাঙ্ক মনোহর ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার ডিসেম্বরের প্রস্তাবিত দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়ে আলোচনা করার জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) কর্তাদের ভারতে আমন্ত্রণ জানান।

বিসিসিআইয়ের ডাকে সাড়া দিতে ভারতেও যান পিসিবির চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খানহন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তবে উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শিব সেনার বিক্ষোভের মুখে আলোচনায় বসেননি বিসিসিআই সভাপতি। ফলে হতাশ হয়েই দেশে ফিরতে হয় পিসিবি কর্তাদের।






মন্তব্য চালু নেই