মেইন ম্যেনু

ভারতের জাতীয় দল নীল রংয়ের জার্সিতেই মাঠে নামে কেন?

ভারতীয় ক্রিকেট দলকে ‘মেন ইন ব্লু’ নামে অনেকদিন ধরেই ডাকেন সমর্থকরা। কারণটাও অজানা নয়। একদিনের ম্যাচে ধোনি, কোহলিরা নীল রংয়ের জার্সি পরেই মাঠে নামেন। শুধু কি ক্রিকেট? এখন ভারতের ফুটবল, হকি-সহ অন্যান্য খেলাতেও জাতীয় দল নীল জার্সি পড়েই মাঠে নামে।

কিন্তু ক্রিকেট-সহ বিভিন্ন খেলায় ভারতের জাতীয় দলের জার্সির রং নীল হয় কেন? বিভিন্ন সূত্র খতিয়ে দেখে সবথেকে গ্রহণযোগ্য যে কারণটা দেখা যাচ্ছে সেটা হল, ভারতের জাতীয় পতাকার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই এই নীল রংকে বেছে নেওয়া হয়েছে। সেক্ষেত্রেও অবশ্য জটিলতা তৈরি হয়েছিল। কারণ, জাতীয় পতাকার প্রধান দু’টি রং গেরুয়া এবং সবুজ। গেরুয়া রংয়ের জার্সি হলে তা একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের পতাকায় ব্যবহৃত রংয়ের সঙ্গে মিলে যেত, যা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হতোই। সবুজ রংয়ের জার্সি আগে থেকেই পাকিস্তানের বিভিন্ন জাতীয় দল ব্যবহার করে। ওদিকে একদিনের ক্রিকেট মানে রঙিন জার্সি বাধ্যতামূলক। তাছাড়া সাদা রংয়ের জার্সি সেই ভাবে আকর্ষণীয়ও নয়। সেই জন্যেই অশোক চক্রের নীল রংয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ভারতীয় ক্রিকেট দলের জার্সির রং হিসেবে নীল রংকেই বেছে নেওয়া হয়।

হকি, ফুটবল-সহ অন্যান্য খেলায় জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা সাদা অথবা হলুদ রংয়ের জার্সি পরেও খেলেছেন। কিন্তু ১৯৮০-র দশকে ভারতে ক্রিকেট বিপুল জনপ্রিয়তা পাওয়ার পরেই অন্যান্য খেলার জাতীয় দলগুলিও ক্রিকেট দলের মতো নীল জার্সি পরতে শুরু করে। এর পরে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কখনও আকাশি, কখনও গাঢ় নীল রংয়ের জার্সিতে মাঠে নেমেছেন সচিন, সৌরভ, কোহলি, ধোনিরা। ভারত প্রথম যখন নীল রংয়ের জার্সিতে মাঠে নামত, তখনও জার্সিতে নীলের সঙ্গে হলুদ রংয়ের নকশা থাকত। পরবর্তী সময়ে জার্সিতে নীলের উপরে জাতীয় পতাকার আদলে তেরঙ্গা ছাপও বেশ জনপ্রিয় হয়। এখন অবশ্য ধোনি, কোহলিদের জার্সিতে শুধুই নীলের দাপট।






মন্তব্য চালু নেই