মেইন ম্যেনু

ভারতের ট্যাক্সিতে এসব কী হচ্ছে!

আবারো নারী যাত্রীকে দেখে অশ্লীলতার অভিযোগ উঠলো এক টেক্সি চালকের বিরুদ্ধে। ব্যাকসিটে নারী যাত্রীকে নিয়ে যাওয়ার সময়, গাড়ি চালাতে চালাতেই হস্তমৈথুনের দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কলকাতার উবার ট্যাক্সি চালককে।

কিছুদিন আগে একই অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল ট্যাক্সি ফর সিওর’র চালককে। সে ঘটনা ঘটেছিল দিল্লিতে।

গত ৮ জুলাই রাতে কলকাতার এলগিন রোডের এক শপিংমলের কাছ থেকে একটি টেক্সি ক্যাব ভাড়া করেন অভিযোগকারী ওই নারী। তিনি নেতাজীনগর যাচ্ছিলেন। বাইরে তখন বৃষ্টি পড়ছিল। হঠাৎই তিনি বুঝতে পারেন চালক সমানের আয়না দিয়ে তাকে লক্ষ্য করছে এবং অস্বাভাবিক আচারণ করছে। তখন ওই চালক তার একহাতে গাড়ি চালাছিল এবং অপর হাতে হস্তমৈথুন করছিল।

এই দৃশ্য দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন ২৫ বছরের ওই নারী। চিৎকার করলে যদি চালক কোনো অঘটন ঘটায় সেই ভয়ে চিৎকারও করতে পারছিলেন না। গন্তব্যে পৌঁছতেই কোনও মতে গাড়ি থেকে নেমে দৌড়ে বাড়িতে ঢুকে যান তিনি।

ঘটনায় এতোটাই ভয় পেয়ে যান যে, সঙ্গে সঙ্গে তিনি তার এক বন্ধুকে ফোন করে গোটা বিষয়টি জানায়। পুরো ঘটনা শুনে বন্ধুটি তাকে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়েরের পরামর্শ দেয়। পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানোর সঙ্গে সঙ্গে অভিযুক্ত চালক পিন্টু যাদবকে ট্র্যাক করে এবং কয়েকদিন ধরে তার উপর নজর রাখা হয়। গত সোমবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪ এবং ৫০৬ নম্বর ধারায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। অবশ্য মঙ্গলবার সে জামিনে ছাড়া পায়।

তবে প্রতিষ্ঠান থেকে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত চালক তাদেরকে কাছে যেসব তথ্য দিয়েছিল তা সবই ভুয়া। তারা অভিযুক্ত চালককে কাজ থেকে বরখাস্তও করেছে।

আবার প্রতিষ্ঠানটির দক্ষিণ এশিয়ার কমিনিউকেশন হেড করুণ আরিয়া জানিয়েছেন, তারা অভিযোগকারী ওই নারীকে সবধরণের সাহায্য করতে প্রস্তুত।

পুলিশের পক্ষ থেকেও জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত চালকের বিরুদ্ধে তারা কঠিন থেকে কঠিনতম ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এদিকে তিন সপ্তাহ আগে ঠিক একই ঘটনা ঘটেছিল ভারতের রাজধানী দিল্লিতে। সেখানে অভিযুক্ত ছিল ট্যাক্সি ফর সিওর’র এক চালক। এর আগে দিল্লির বুকে উবের চালকের হাতে ধর্ষিতা হন এক নারী। সে ঘটনা নিয়ে উত্তাল হয় সারাদেশ।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই