মেইন ম্যেনু

‘ভারতে পাট রপ্তানি সহজ হচ্ছে’

বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাটসহ বেশকিছু পণ্য রপ্তানিতে যে জটিলতা রয়েছে তা নিরসনে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগামীতে বাংলাদেশ সহজ শর্তে ভারতে পাট রপ্তানি করতে পারবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

এ সময় তিনি বলেন, ভারত-বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি অনেক। তাদের সঙ্গে যে বাণিজ্য ঘাটতি বা বৈষম্য রয়েছে তা আমাদের ক্ষতি করে না, বরং লাভ হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভারত বাংলাদেশের পাশে সুখে-দুঃখে ছিল। ভবিষ্যতেও থাকবে। বর্তমানে দেশের জঙ্গি সমস্যা রয়েছে তা নিরসনেও পাশে থাকবে। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বন্ধু রাষ্ট্র ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্কের কোনো বিকল্প নেই। বাংলাদেশ-ভারত সবসময় একসঙ্গে কাজ করবে।

তিনি আরো বলেন, পোশাকশিল্পের মালিকরা ভারত থেকে তুলাসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানি করে। ভারত এসব পণ্যের শুল্ক কমানোর দাবি জানিয়েছে, আমরা শুল্ক কমানোর আশ্বাস দিয়েছি।

তিনি বলেন, কুড়িগ্রাম, সুনামগঞ্জ, ফেনী ও ব্রাক্ষণবাড়িয়ায় চারটি বর্ডার হাটের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আগামীতে আরো ছয়-সাতটি হাটের কার্যক্রম শুরু হবে।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি থাকলেও তা বাংলাদেশের জন্য ক্ষতিকর নয়, কারণ ভারত থেকে বাংলাদেশ কাঁচামাল আমদানি করে পণ্য বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করে বিপুল পরিমাণ রপ্তানিতে আয় করছে। সে দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশে বাণিজ্য পজেটিভ। তবে ভারত থেকে শিল্পের কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রে যাতে অতিরিক্ত কোনো ধরনের শুল্ক আরোপ করা না হয়, সে বিষয়ে উভয়দেশ আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে। ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য ব্যবধান কমাতে উভয়দেশ আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে।

এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত সচিব (এফটিএ) মনোজ কুমার রায় এবং যুগ্মসচিব (এফটিএ) মুনির চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই