মেইন ম্যেনু

ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংক্রান্ত রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ

রাজধানীর ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে পুলিশের জারি করা বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া সংক্রান্ত জারি করা রুল হাইকোর্টে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আগামী ৩১ মের মধ্যে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চকে রুলটি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

জারি করা রুল স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন খারিজ করে বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ২৭ মার্চ হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ পুলিশের জারিকৃত বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, এই মর্মে এক সপ্তাহের রুল জারি করেন হাইকোর্ট। জারি করা উক্ত রুল স্থগিত চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষ। চেম্বার বিচারপতি বিষয়টি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। বৃহস্পতিবার ওই আবেদনের শুনানি শেষে আদালত এই আদেশ দেন।

ভাড়াটিয়ার তথ্য সংগ্রহের লক্ষ্যে পুলিশের জারিকৃত বিজ্ঞপ্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের তিন আইনজীবী আইনুন নাহার সিদ্দিকা, এস এম এনামুল হক ও অমিত দাস গুপ্ত।

রিট আবেদনে বলা হয়, ঢাকা মহানগর পুলিশ (নিয়ন্ত্রণ ও নির্দেশনা) বিধিমালা, ২০০৬ এর ৪ এর খ ধারায় বলা হয়েছে, মহানগরীর কোনো এলাকাতে কোনো অপরাধ ঘটলে পুলিশ দ্রুত যে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে। এই বিধান বলে বাড়ির মালিকের মাধ্যমে ভাড়াটিয়ার ব্যক্তিগত যাবতীয় তথ্য চেয়ে ফর্ম বিলি করছে। কিন্তু এই বিধানের ক্ষমতা বলে একজন ব্যক্তির সকল ব্যক্তিগত তথ্য পুলিশ চাইতে পারে না। কারণ ওই ধারায় বলা হয়েছে, কোনো অপরাধ সংঘঠিত হলে পুলিশ দ্রুত যে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারবে। পুলিশ তথ্য চাওয়ায় নাগরিকের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে, যা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক বলে জানান রিট আবেদনকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার অনীক আর হক।

গত ১৩ মার্চ ঢাকা মহানগর এলাকায় বাড়ির মালিকদের মাধ্যমে ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহের কার্যক্রম বন্ধ করার নির্দেশনা চেয়ে দায়ের করা অপর একটি রিট খারিজ করে দেন হাইকোর্টের আরেকটি বেঞ্চ।






মন্তব্য চালু নেই