মেইন ম্যেনু

ভিক্ষাবৃত্তি বন্ধে আরো কঠোর সৌদি

চলতি বছরের গোড়া থেকেই দেশে ভিক্ষাবৃত্তি বন্ধে তৎপর রয়েছে সৌদি সরকার। রমজানে তাদের সেই তৎপরতা আরো জোরদার করা হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে শুক্রবার স্থানীয় নাগরিকদের ভিক্ষা দেয়ার বিরুদ্ধে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শুক্রবার এক বিবৃতিতে ভিক্ষুকদের সাহায্য দেয়ার বিরুদ্ধে দেশের নাগরিকদের সতর্ক করে দিয়েছে। এক বিবৃতিতে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যারা ভিক্ষা দেবে ভিক্ষুক বিরোধী অভিযানে তাদেরকেও আটক করা হবে।

বিবৃতিতে আরো জানানো হয়েছে, আটক বিদেশি ভিক্ষুকদের দেশ থেকে বিতাড়িত করা হবে। আর স্থানীয় ভিক্ষুকদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবে সরকার। সৌদিতে এ পর্যন্ত যত ভিক্ষুককে আটক করা হয়েছে তাদের প্রায় ৮৫ ভাগই বিদেশি নাগরিক এবং অধিকাংশই আফ্রিকার বাসিন্দা। এরা শহরের সড়কগুলোতে গাড়ি, দোকানপাট এবং পথচারীদের কাছে ভিক্ষা চেয়ে থাকে।

সৌদির সামাজিক বিষয়ক মন্ত্রণালয় পুলিশের সহায়তায় ভিক্ষাবৃত্তি বন্ধে দীর্ঘদিন ধরেই তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। রমজান জুড়ে তাদের ফকির বিরোধী প্রচারনা আরো জোরদার হয়েছে। কেননা পবিত্র মাসকে কেন্দ্র করেই সৌদিতে ভিক্ষুকদের দৌরাত্ম বেড়ে যায়। প্রচারকরা ভিক্ষা করার প্রধান প্রধান স্থানগুলো যেমন ট্রাফিক সিগন্যাল, মসজিদ, উদ্যান, মার্কেট এবং এটিএম বুথগুলোর পাশে ফকিরদের ধরার জন্য ওৎ পেতে আছে।

গত তিন মাসে রাজধানী রিয়াদে অভিযান চালিয়ে আটক করা হয়েছে ১৫৮ জন ভিক্ষুককে। এদের মধ্যে ২৫ জনই শিশু। রিয়াদের পুলিশ প্রধান মেজর জেনারেল সাউব বিন হিলাল বলেছেন, ভিক্ষুকদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে সাধারণত: দিনের অপ্রচলিত সময়গুলো বেছে নেয় পুলিশ। নইলে ফকিরদের গ্যাংগুলো মোবাইলে অন্যদের পুলিশি অভিযান সম্পর্কে সতর্ক করে দেয়।






মন্তব্য চালু নেই