মেইন ম্যেনু

ভূমিকম্প থেকে বেঁচে যাওয়া সেই মেয়েটিই এখন সর্বকনিষ্ঠ অলিম্পিয়ান

নেপালে ভয়ংকর ভুমিকম্প থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন এই মেয়েটি। গত বছর ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল নেপাল। ভয়াবহ সেই ভূমিকম্পে মারা গিয়েছিল ৯ হাজারের বেশি মানুষ।

সৌভাগ্যক্রমে সেদিন বেঁচে গিয়েছিল এই মেয়েটি। সেই গৌরিকাই এবারের রিও অলিম্পিকের সবচেয়ে কম বয়সি খেলোয়াড়। আগামী রোববার যখন মেয়েদের ১০০ মিটার হিটে অংশ নিতে পুলে নামবে নেপালি এই সাঁতারু, তার বয়স হবে ১৩ বছর ২৫৫ দিন।

সবকিছু স্বপ্নের মত লাগছে গৌরিকার। তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘অলিম্পিক খেলার স্বপ্ন নিয়ে সাঁতারু হয়েছি। তবে এত কম বয়সে এই সৌভাগ্য হবে ভাবতে পারিনি। এবারের অলিম্পিক আসরে সেরাটা দিতে চেষ্টা করবো।

এ বছর এশিয়া গেমসেও অংশ নেয় এই মেয়েটি। ফেব্রুয়ারিতে ভারতের গোয়াহাটিতে দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে সে রুপা জিতেছে ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলে। ব্রোঞ্জ পেয়েছে ১০০ মিটার ও ২০০ মিটার ব্যাকস্ট্রোক এবং ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে।

সে অভিজ্ঞতার আলোকে গৌরিকার বলেন, অলিম্পিকে সব সময় বেশি চাপ থাকে। এই চাপকে জয় করতে হবে। গত বছরের ভূমিকম্পের অবস্থা স্মরণ করতেই শিউরে ওঠেন তিনি।

এ বিষয়ে গৌরিকার বলেন, সে সময় নতুন একটি ভবনের ৫ তলায় ছিলাম আমরা। দেখছিলাম ভবনগুলো ধসে পড়ছে। একটি টেবিলের নিচে ৫মিনিট লুকিয়ে ছিলাম। পরে বেঁচে যাওয়ার নিজেকে ভাগ্যবান মনে হলো।






মন্তব্য চালু নেই