মেইন ম্যেনু

ভোটকেন্দ্র দখলের অভিযোগ আ.লীগেরও

পৌরসভা নির্বাচনে সারা দেশে বেশ কয়েকটি কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) চিঠি দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। বিএনপির নেতা-কর্মীরা এসব কেন্দ্র অবৈধভাবে দখল করেছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছে দলটি। এসব ঘটনায় বিএনপির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানিয়েছে আওয়ামী লীগ।

বুধবার বিকেলে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কার্যালয়ে লিখিতভাবে এ অভিযোগ করেন। পরে সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

‘ভোটকেন্দ্রে বাধা, আওয়ামী লীগ কর্মী ও ভোটারদের হয়রানি প্রসঙ্গে’ শিরোনামে এই চিঠিতে বলা হয়, সারা দেশে পৌর নির্বাচন যাতে সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হয়, সেজন্য আওয়ামী লীগ প্রথম থেকেই নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করে আসছে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক যে, আজ ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার পর থেকে বিএনপি ব্যাপক হারে ক্যাডার বাহিনী দিয়ে ভোটকেন্দ্র দখল, ভোটারদের আসতে বাধা প্রদান, জালভোট প্রদান এবং অনেক কেন্দ্রে ব্যাপক হারে গোলযোগ সৃষ্টি করেছে। এর ফলে ভোটাররা ভোট না দিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।

এইচ টি ইমাম বলেন, ‘অনেক স্থানে রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে, মারধর করেছে। সব মিলে তারা ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণের ক্ষেত্রে অন্তরায় সৃষ্টি করেছে। এতে স্পষ্ট প্রতীয়মন হয় যে, বিএনপি সর্বক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে।’

চিঠিতে আওয়ামী লীগ যেসব পৌরসভায় অনিয়মের অভিযোগ করেছে, তা হলো- নড়াইল জেলার কালীয়া পৌরসভা পাঁচটি কেন্দ্রে বাধা প্রদান, বরগুনার পাথরঘাটা পৌরসভার কতিপয় ভোট ক্রেন্দ্র দখল, রাজশাহীর দূর্গাপুর পৌরসভা বুথ দখল করে জাল ভোট প্রদান, চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌরসভার ভোটকেন্দ্র দখল এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন, হাজীগঞ্জ পৌরসভায় ভোটকেন্দ্র দখল, টাঙ্গাইলের ভূয়াপুর পৌরসভা, যশোরের মনিরামপুর পৌরসভা, চট্টগ্রামের চন্দনাইশ পৌরসভা, শেরপুরের নালিতাবাড়ি পৌরসভা, যশোরের বাঘারপাড়া পৌরসভা, পাবনার চাটমোহর পৌরসভা, ময়মনসিংহের ভালুকা পৌরসভা, জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভা, নরসিংদির মাধবদি পৌরসভা, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড পৌরসভা, মেহেরপুরের গাংনি পৌরসভা, ঝিনাইদাহের মোহাম্মাদপুর পৌরসভা, শেরপুরের নকলা পৌরসভা।

এইচটি ইমাম বলেন, এ ছাড়াও অন্যান্য পৌরসভা থেকে প্রতিনিয়ত একই ধরনের অভিযোগ আসছে। অনিয়ম বন্ধের জন্য আপনার (সিইসি) সদয় দৃষ্টি কামনা করছি।

এর আগে দুপুরে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে বিএনপি যত অভিযোগ করছে, সবই ভিত্তিহীন। কিছু জায়গায় বাড়াবাড়ি ছাড়া সুষ্ঠু ও আনন্দঘন পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে।

কয়েকটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত হওয়ার বিষয়ে এইচ টি ইমাম বলন, ‘এটি ইসির ব্যর্থতা নয়। সরকার শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের ব্যাপার জিরো টলারেন্স অবস্থান গ্রহণ করেছে। এর সুযোগ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু সদস্য ও প্রশাসনের বাড়াবাড়ির কারণে কোথাও কোথাও সহিংসতার সৃষ্টি হচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করতে এসেছি। যাতে তারা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতে পারে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই