মেইন ম্যেনু

ভোটের আগেই ব্যালটে সিল, ৫ নির্বাচন কর্মকর্তা আটক

শুরু হয়েছে চতুর্থ দফা নির্বাচন।শনিবার সকাল আটটা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহণ চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত। কিন্তু ভোটগ্রহণ শুরুর আগের রাতে ব্যালটে সিল মারার অভিযোগে নির্বাচন গ্রহণের দায়িত্বে থাকা পাঁচ প্রিজাইডিং অফিসারকে আটক করেছে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ। এদের মধ্যে এক প্রিজাইডিং অফিসারকে কারাদণ্ড এবং আরেক প্রিজাইডিং অফিসারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

ভোটের আগের রাতে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের মুন্সিরহাট ইউনিয়নের যুগীরহাট কেন্দ্রে ব্যালট পেপারে সিল মারার অভিযোগে ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসারসহ পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ।

তারা হলেন- প্রিজাইডিং অফিসার মোবারক হোসেন, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার তাজুল ইসলাম ও ওসমান আলী এবং ছাত্রলীগ নেতা যুগিরহাট গ্রামের আবদুল হকের ছেলে খোরশেদ আলম, আবুল হাশেমের ছেলে শাহীন ও রফিক মিয়ার ছেলে মাছুম।

জামালপুরের বক্সিগঞ্জ উপজেলার সাদুরপাড়া ইউনিয়নে জাল ভোট দিতে সহযোগিতা করায় দুটি কেন্দ্রের দুই প্রিজাইডিং অফিসারকে আটক করা হয়েছে। তারা হলেন- নজরুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার একে এম আকরামুজ্জামান ও আরচাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিজাইডিং অফিসার মো. আনিসুজ্জামান আকন্দ।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আব্দালপুর ইউনিয়নের পশ্চিম আব্দালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটের আগে ব্যালট পেপারে সিল মারার সময় হাতেনাতে আটক প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আশরাফ উদ্দিনকে তাৎক্ষণিক প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এছাড়া ভোটের আগের রাতে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার হাতিবান্দা ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার আব্দুল বারী ও মেম্বার প্রার্থী সাইফুদ্দিন দোলনের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।






মন্তব্য চালু নেই