মেইন ম্যেনু

ভোলায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ডাকাতির চেষ্টা ॥ আটক-১

ভোলার সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়ানের চেউয়াখালি গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ডাকাতির চেষ্টাকালে একই পরিবারের শিশুসহ ৪জন গুরুতর আহত হয়।এই ঘটনায় পুলিশ ১জনকে আটক করেছে। আহতদের ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- আনিচ পাটারী (৫০), রাবেয়া বেগম শিল্পি(৪২),ফাহাদ হোসেন (১৮), সাফায়াত হোসেন ফাহিম(৮)।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শনিবার দিবাগত রাতে ২ টার দিকে বাপ্তা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে চেউয়াখালী গ্রামে একদল দূর্বৃত্ত আনিচ পাটওয়ারী বাড়িতে দেশী অস্ত্র – স্বস্ত্র ও পিস্তল নিয়ে হামলা চালায়। এসময় দূর্বৃত্তরা ওই পরিবারের সকলকে জিম্মি করে ফেলে। পরে তারা ঘরে থাকা স্বর্ন অলংকারসহ প্রায় ১০লক্ষ টাকার মালামালসহ জমির কাগজপত্র লুটপাট করে নিয়ে যায়। এসময় পরিবারের লোকজন ডাক চিৎকার করলে দূর্বৃত্তরা দেশী অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে এবং শিল্পী নামের একজনকে চোখে পিস্তল দিয়ে গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা এসে আহতদেকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

এঘটনায় পরিবারের পক্ষে মানিক পাটওয়ারী বাদী হয়ে দুপুরে ভোলা সদর থানায় ৪জনকে আসামি ও অজ্ঞাত আরো অনেককে রেখে একটি লুটপাট মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৯। এতে আসামীরা হলেন, মোঃ সেন্টু, সেলিম, শিবলু, শাহাজল। এদের মধ্যে শিবলু নামরে এক আসামীকে দুপুরে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে এ ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে ডাকাতির কথা বলা হলেও পুলিশ অদৃশ্য কারনে পরিবারকে লুটপাট মামলা করাতে বাধ্য করেন।এ ব্যাপারে আহত ফহাদ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয় পাঠান বাড়ির লোকজনদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ থাকায় সেলিম পাঠান, মালেক পাঠান, শাহাজল পাঠানসহ তাদের পরিবারের সদস্যরা এ হামাল ও লুটপাটের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে ধারনা করেন।

এ ব্যপারে ভোলা সদর সার্কেল এসপি রামানন্দ সরকার বলেন, মূলত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আনিচ পাটওয়ারীর পরিবারের সাথে স্থানীয় পাঠান পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে দন্দ্ব ও মামলা চলে আসছিলো। তারই অংশ হিসেবে গতকাল রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামলার তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত আসামীদেরে গ্রেপ্তার করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই