মেইন ম্যেনু

ভ্যাট ৭ শতাংশ করার দাবি এফবিসিসিআই’র

নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করার আগেই ভ্যাট কমিয়ে সাত শতাংশ করার দাবি করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে ভ্যাট অনলাইন প্রজেক্ট সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ এ দাবি করেন।

মাতলুব আহমাদ বলেন, পৃথিবীর কোনো দেশে ১৫ শতাংশ ভ্যাটের প্রচলন নাই, একমাত্র বাংলাদেশ ছাড়া। মালয়শিয়ায় মাত্র ছয় শতাংশ, থাইল্যান্ডে সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট ব্যবস্থা চালু রয়েছে। সেখানে আমরা দেই ১৫ শতাংশ।

তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশের অর্থনীতিতে প্রাইভেট সেক্টর নেতৃত্ব দিচ্ছে। অথচ অধিকাংশ ব্যবসায়ী ভ্যাট সিস্টেমের বাইরে রয়েছে। এনবিআর ব্যবসায়ীদের কাছে ৩১ হাজার কোটি টাকা পাবে। এর মধ্যে ২০ হাজার কোটি টাকা হলো ভ্যাট সংক্রান্ত। তাই আমাদের দাবি থাকবে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করার আগেই ভ্যাট কমিয়ে সাত শতাংশ করুন।

এফবিসিসিই সভাপতি বলেন, ব্যবসায়ীরা কর দিতে চান। তবে সেজন্য আমরা অবশ্যই এক টাকার কর দিতে গিয়ে তিন টাকার হয়রানির শিকার হতে চাই না। অনলাইন ভ্যাট যথাযথভাবে চালু করতে হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পাশাপাশি গ্রাহক পর্যায়ে প্রশিক্ষন দেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। তা না হলে পুরো সিস্টেম কার্যকর হবে না।

ঢাকা উত্তর ভ্যাট কমিশনারেটের এক জরিপের তথ্য উপস্থাপন করে মাতলুব আহমাদ বলেন, ঢাকা উত্তরের পরিসংখ্যান অনুসারে দেখা যায় মাত্র ৬১ হাজার ৪৮৯ জন ব্যবসায়ী নিয়মিত ভ্যাট দেন। অর্থ্যাৎ মোট ব্যবসায়ীর মাত্র নয় শতাংশ ভ্যাট দেন, ৯১ শতাংশ ব্যবসায়ী ভ্যাট দেন না। বিষয়টি দু:খজনক। তবে ভ্যাট অনলাইন চালু হলে আশা করি এ সমস্যার সমাধান হবে।

অনলাইন ভ্যাট প্রজেক্টে চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন শুরু ও ১৫ আগস্ট থেকে থেকে নতুন সিস্টেমে ভ্যাটের অর্থ গ্রহণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

সেমিনারে প্রজেক্ট উপস্থাপনা করেন ভ্যাট অনলাইন প্রজেক্ট পরিচালক মো. রেজাউল হাসান।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, এনবিআর সদস্য (শুল্কনীতি) মো. ফরিদ উদ্দিন, সদস্য (মূসকনীতি) ব্যরিস্টার জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই