মেইন ম্যেনু

মদনে ধান ক্রয় বন্ধে কৃষক উদ্বিগ্ন

সংবাদদাতা, মদন (নেত্রকোণা): মদনে সরকারী ধান ক্রয় কেন্দ্রে শনিবার থেকে ধান কেনা বন্ধ হওয়ায় কৃষকগন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, ৫ মে থেকে ২৩শ ৬ মেট্রিক টন ধান কেনার লক্ষ্য মাত্রা নিয়ে ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত সময় সীমা নির্ধারণ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ধান কেনা শুরু করেন।

এতে স্থানীয় হাট বাজার গুলোতে ধানের দাম ৫শ টাকা থেকে ৭শ৫০ টাকা পর্যন্ত উঠে যায়। এতে কৃষকদের মধ্যে আনন্দের সঞ্চার হয়। হঠাৎ ১৬ জুলাই ৯শ ২৪ মেট্রিন টন ধান ক্রয় করেই নিদিষ্ট সময়ের পূর্বেই ধান কেনা বন্ধ করে দেয়। এ খবর চড়িয়ে পড়ার সাথে সাথেই বিভিন্ন এলাকায় ধানের দাম কমে ৫শ থেকে ৫শ ৫০ টাকায় নেমে গেছে। কৃষকগণ ধান ক্রয়ে প্রাক্ষালে বুক ভরা আশা ছিল সরকারী ক্রয় কেন্দ্রে ৯২০ টাকায় ধান বিক্রি করবে। কিন্তুু হঠাৎ ধান ক্রয় বন্ধ করে দেওয়াই কৃষকগন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে ।

এ ব্যাপারে মনোহার পুর গ্রামের কৃষক আল-আমিন ,বাঘমারা গ্রামের কৃষক হাফিজুর রহমান ,ফতেপুরের কৃষক ফরিদ চৌধুরী জানান,সরকারি ক্রয় কেন্দ্রে ধান কেনার শুরুর সাথে সাথেই হাট বাজার গুলোতে ৫শ টাকা থেকে এক লাফে সাড়ে ৭শ টাকায় উঠে যায়। এখন ধান কেনা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ধানের দাম সাড়ে ৫শ থেকে সাড়ে ৫শ টাকায় নেমে গেছে। সরকারি ক্রয় কেন্দ্রে ধান কেনা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আমার মতো আরো অনেক কৃষক ধান নিয়ে চিন্তায় পড়েছে। তারা আরো জানান এখানের ভারপ্রাপ্ত খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা রমেন্দ্র নারায়ণ পালের সাথে খাদ্য পরিদর্শক কামরুজ্জামানের মতানৈক্যতার কারণে ধান ক্রয় কম হয়েছে।

এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা রমেন্দ্র নারায়ণ পাল জানান,সরকারের ধান ক্রয় বন্ধেন নির্দেশের প্রেক্ষিতে ১৬ জুলাই থেকে এখানে ধান কেনা বন্ধ রাখা হয়েছে।

খাদ্য পরিদর্শক কামরুজ্জামান জানান,নেত্রকোণা জেলার ধান ক্রয়ের লক্ষ্য মাত্রা অর্জিত হওয়ায় সরকারি নির্দেশের প্রেক্ষিতে ধান ক্রয় বন্ধ রাখা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ খুরশীদ শাহরিয়র জানান,উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ১৬ জুলাই থেকে ধান কেনা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পরবর্তি নির্দেশ পেলে আবারো ধান কেনা শুরু হবে।






মন্তব্য চালু নেই