মেইন ম্যেনু

মদনে প্রাইমারী শিক্ষককে অন্যত্র বদলীর আশ্ব্যাসে পাঠদান বর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার

আরমান জাহান চৌধুরী মদন (নেত্রকোণা) থেকে : উপবৃত্তির টাকা বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদে নেত্রকোণার মদন উপজেলার নায়েকপুর ইউনিয়নের চন্দ্রতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ০৭ (সাত) দিন ধরে ক্লাস বর্জনের প্রেক্ষিতে শনিবার উপজেলা চেয়ারম্যান, এম. এ হারেছ সরেজমিনে স্কুল পরিদর্শন শেষে, আত্মসাৎকৃত টাকা ফেরত ও দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষককে অন্যত্র বদলীর আশ্বাসে ছাত্র অভিভাবকগণ তাদের ক্লাসবর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেন।

গত ২৩ জুলাই উপবৃত্তির টাকা বিতরণকালে অনিয়ম ও দুর্নীতি হলে এর বিচারের দাবীতে ছাত্র অভিভাবকগণ ২৪ জুলাই থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাসবর্জন কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান এম.এ হারেছ জানান, শনিবার উক্ত বিদ্যালয় পরিদর্শনকালে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির ভূয়া স্বাক্ষর ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে কোন সভা না করে প্রধান শিক্ষক মোঃ সিরাজুল ইসলাম একক ক্ষমতাবলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের যোগসাজুশে নিজেই মনগড়াভাবে টাকা বিতরণ করেছেন এমন ঘটনা প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় প্রধান শিক্ষক ও তার সহকর্মী সহকারী শিক্ষক লাভলী ইয়াসমিনকে অন্যত্র বদলীর আশ্বাসসহ আত্মসাৎকৃত টাকা ফেরতের নির্দেশ দেন।

উক্ত রায় প্রধান শিক্ষক ও অভিভাবকগণ মেনে নেয়। ছাত্র অভিভাবক শহর আলী, ইদ্রিস, রহিছ মিয়া জানান, আত্মসাতের টাকা ফেরত এবং দুর্নীতিবাজকে অন্যত্র বদলী করা হবে তাই আমরা ক্লাস বর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার করলাম।

তবে ভূয়া ম্যানিজিং কমিটির স্বাক্ষর যাচাই না করে ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা জিয়াউল হক, বিলে কি করে স্বাক্ষর করেন বিষয়টি যাচাই করলে অনেক রহস্য বের হয়ে আসবে। ঘটনাটি এলাকায় দারুন আলোড়নের সৃষ্টি করেছে। এ সময় অনুমোদনহীন ম্যানেজিং কমিটি, ০৪ (চার) শিক্ষক, শতাধিক ছাত্র অভিভাবকসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই