মেইন ম্যেনু

মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হতে সমর্থন থাকবে বিশ্বব্যাংকের

চলতি দশকের শেষ নাগাদ মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশের প্রতি দৃঢ় সমর্থন ব্যক্ত করেছেন বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যানেট ডিক্সন।

দুই দিনের বাংলাদেশ সফর শেষে অ্যানেট ডিক্সন এই প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। সোমবার বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয় থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

অ্যানেট ডিক্সন বলেছেন, মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হতে সরকারের লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশকে সমর্থন দিতে আগ্রহী বিশ্ব ব্যাংক। এছাড়া প্রবৃদ্ধি অর্জন, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশে বাংলাদেশকে সহায়তা করবে বিশ্বব্যাংক। এ জন্য বাংলাদেশকে টেকসই উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে হবে।

দারিদ্র্য বিমোচন ও মানবসম্পদ উন্নয়নে বাংলাদেশের সাফল্য অর্জনের প্রশংসা করে বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন, অন্যান্য দেশ বাংলাদেশের উন্নয়ন অভিজ্ঞতা অনুসরণ করছে।

প্রাথমিক শিক্ষার অগ্রগতি, শিশু পুষ্টি এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলার বিষয়ে অ্যানেট ডিক্সন বলেন, বিশ্বব্যাংক দারিদ্র বিমোচন এবং দেশের জনগণের সমৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উন্নয়নমূলক কাজে অনুদান প্রদাণের লক্ষ্যে পার্টনারশিপ ফ্রেমওয়ার্ক তৈরি করছে বিশ্বব্যাংক। সংস্থাটির দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ সফরকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে আসেন ডিক্সন। বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিক্সন বাংলাদেশে তার দুই দিনের সফরকালে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতসহ কয়েকজন সিনিয়র সরকারি কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তিনি বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কীভাবে ঋণ সহায়তা দেয়া যেতে পারে সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশের তেলের দাম পুনর্নির্ধারণে ৫০ কোটি ডলার বাজেট সহায়তাসহ সম্ভাব্য সব ধরণের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের শুরুর দিকে বিশ্বব্যাংকের বিবেচনায় বাংলাদেশ নিম্ন আয়ের দেশ থেকে নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। এই অবস্থায় বাংলাদেশের উন্নয়নমূলক সহায়তার বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্টের মন্তব্য ইতিবাচক হিসেবে দেখা হচ্ছে।

সর্ববৃহৎ উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভের পর থেকে এ পর্যন্ত ১৯ বিলিয়নের বেশি সুদমুক্ত আইডিএ ঋণ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই