মেইন ম্যেনু

মন্ত্রিত্ব ছেড়ে লেখাপড়া করুন : অর্থমন্ত্রীকে এমাজউদ্দিন

মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়ে পড়ালেখা করতে অর্থমন্ত্রীকে পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ।

একইসঙ্গে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর ধার্য ভ্যাট প্রত্যাহার করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চাওয়ারও পরামর্শ দেন তিনি।

শিক্ষা ব্যবস্থায় নৈরাজ্য, শিক্ষকদের প্রতি বৈষম্য এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে এক আলোচনা সভায় তিনি এই পরামর্শ দেন।

শুক্রবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অর্থমন্ত্রীকে উদ্দেশ তিনি বলেন, “শিক্ষকদের নিয়ে বাজে কথা বলে ভুল স্বীকার করেছেন। এখন আবার শিক্ষার্থীদের ওপর ভ্যাট আরোপ করেছেন। এটা আপনার সবচেয়ে বড় অপরাধ। তাই নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করে শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চান।”

অন্যথায় পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করেন এই রাষ্ট্রবিজ্ঞানী।

অর্থমন্ত্রীকে পরামর্শ দিয়ে এমাজউদ্দিন বলেন, মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়ে কিছু লেখাপড়া করুন। অন্যথায় কথা না বলে চুপচাপ বসে থাকুন।

তিনি অভিযোগ করেন, ‘ব্যক্তি বিশেষের স্বার্থের জন্য সরকার শিক্ষার্থীর ওপর ভ্যাট আরোপ করেছে। যাতে তারা আরো কিছু দিন ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেন।’

তিনি সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অবহেলা করবেন না। বরং এদের সাহায্য-সহযোগিতা করুন। অন্যথায় আজ যে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন গড়ে উঠেছে তার ফল আপনাদের জন্য ভালো হবে না।’

সরকারকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৬৫ থেকে ৭০ শতাংশ ছাত্র-ছাত্রী লেখাপড়া করছে। এসব শিক্ষার্থী আপনাদের কোনো অর্থ খরচ করে না। অথচ কোন যুক্তিতে আপনারা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর ভ্যাট আরোপ করলেন?’

বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে অকার্যকর করে ফেলার ষড়যন্ত্র করছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘এ কারণেই সরকার বেসরকারি শিক্ষার্থীদের ওপর ভ্যাট আরোপ করেছে।’

এসময় তিনি এইচএসসি পর্যন্ত সম্পূর্ণ বিনামূল্যে শিক্ষাব্যবস্থা চালু করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শামা ওবায়েদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন- বিএনপির সহআইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, সহদপ্তর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন, ব্যারিস্টার পারভেজ আহমেদ প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই