মেইন ম্যেনু

মন্ত্রিসভার অনুমোদন ছাড়া ক্রয়ের সীমা বেড়েছে

দেশের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর আর্থিক সক্ষমতা বাড়িয়ে দ্বিগুণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বর্তমানে কোনো মন্ত্রণালয় বা বিভাগ উন্নয়ন বাজেটের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০ কোটি টাকার কেনাকাটার সিদ্ধান্ত নিতে পারে। এর বেশি হলে তা ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি অনুমোদনের প্রয়োজন হয়। তবে এখন থেকে মন্ত্রণালয় বা বিভাগ সর্বোচ্চ ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত কেনাকাটার সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।

সম্প্রতি সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির কার্যপরিধি সংশোধন করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অর্থমন্ত্রী অনুমোদন করেছেন বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

এ বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর আর্থিক সক্ষমতা বাড়ানোর ফলে সরকারি কাজে গতি বাড়বে। বর্তমানে মন্ত্রণালয় বা বিভাগগুলো উন্নয়ন বাজেটের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০ কোটি টাকার কেনাকাটার সিদ্ধান্ত নিতে পারে। এজন্য সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন নিতে হয় না। কিন্তু ৫০ কোটি টাকার বেশি হলেই ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন নেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এখন থেকে মন্ত্রণালয় বা বিভাগ সর্বোচ্চ ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত কেনাকাটার সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। তবে ১০০ কোটি টাকার বেশি হলে তা অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে পাঠাতে হবে। একই সঙ্গে পরামর্শক সেবার ক্ষেত্রেও সর্বোচ্চ ৩০ কোটি টাকার সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয় ও বিভাগ নিতে পারবে। এর বেশি হলে তা অনুমোদনের জন্য ক্রয় কমিটির বৈঠকে পাঠাতে হবে।

মন্ত্রণালয়গুলোর ক্রয় ক্ষমতা দ্বিগুণ করার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করে অর্থ বিভাগের প্রস্তাবে বলা হয়েছে, সরকারের কর্মকাণ্ড একদিকে যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে, অপরদিকে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার, অন্তর্ভুক্ত প্রকল্প সংখ্যা এবং বৃহৎ প্রকল্পের সংখ্যা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এডিপিতে অন্তর্ভূক্ত প্রকল্পের মধ্যে ৫০ কোটি টাকা পর্যন্ত প্রাক্কলিত ব্যয় সংবলিত প্রকল্পের সংখ্যা ৪৫৪টি, ৫০ কোটি থেকে ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত ২০৬টি এবং ১০০ কোটি টাকার ঊর্ধ্বে প্রাক্কলিত ব্যয় সংবলিত প্রকল্পের সংখ্যা ছিল ৬৫১টি।

অর্থ বিভাগের প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়, এই পরিপ্রেক্ষিতে আর্থিক ক্ষমতা প্রয়োগের বিভিন্ন স্তরে বর্তমানে যে পরিধি নির্ধারিত রয়েছে তা পরিবর্তন জরুরি।এছাড়া পর্যালোচনায় আরো দেখা যায়, ২০১২-১৩ অর্থবছরে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি কর্তৃক আট হাজার ২৬ কোটি টাকার ক্রয় প্রস্তাব বিবেচনা করা হয়। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে তা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৬৬ হাজার ৬১ কোটি টাকা। অর্থাৎ, সরকারি কর্মকাণ্ডের পরিধি প্রসারের পাশাপাশি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির কার্যক্রমের কলেবরও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এসব বিষয় বিবেচনা করে উন্নয়ন প্রকল্পের ক্ষেত্রে সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ, পরিদফতর, অধিদফতর, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রেরিত এককভাবে ১০০ কোটি টাকার ঊর্ধ্বে প্রস্তাব সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে প্রেরণ করতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই