মেইন ম্যেনু

মন্ত্রীর গাড়ি থামিয়ে বৃদ্ধাকে বাঁচালেন ওসি

একেই বলে পুলিশের মানবিকতা। মন্ত্রীকে নিরাপত্তা দিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন থানার ওসি, হঠাৎ তিনি দেখতে পেলেন বৃদ্ধা এক নারী বিপদে পড়েছেন। তখনই তিনি মন্ত্রীর গাড়িকে থামিয়ে রেখে সেই বৃদ্ধাকে বিপদ থেকে উদ্ধার করেন। তার জন্যই আজ প্রাণে বাঁচলেন ৬৫ বছরের ওই বৃদ্ধা।

ঘটনাটি আমাদের দেশে না হলেও বেশি দূরে না, প্রতিবেশী পশ্চিমবঙ্গের উত্তরবঙ্গেই। ওসির এ কাজকে বাহবা জানিয়েছেন জেলা পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। সঙ্গে মন্ত্রীও তাকে পিট চাপড়াতে ভুল করেননি।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল গাড়িবহর নিয়ে উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ মালদহ জেলার এনায়েতপুর পঞ্চায়েতের মীরাগ্রাম দিয়ে ফিরছিলেন। সামনে ছিল স্থানী মানিকচক থানার পাইলট কার। সেখানে বসে ছিলেন থানার ওসি পরিমল সাহা।

হঠাৎ তার নজরে পড়ে, গ্রামের রাস্তার ধারে এক বৃদ্ধাকে গুঁতোচ্ছে একটি ষাঁড়। আর তখনই উভয় সঙ্কটে পড়ে যান তিনি। একদিকে মন্ত্রীসহ প্রশাসন ও পুলিশ কর্মকর্তাদের গাড়িবহর, অন্যদিকে বৃদ্ধার প্রাণ। মুহূর্তের মধ্যে নিজের লক্ষ্য স্থির করে ফেলেন তিনি। থামিয়ে দেন পাইলট কার।

এদিকে হঠাৎ মন্ত্রীর গাড়িবহর থেমে যাওয়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে নিজেদের গাড়ি থেকে নেমে আসেন জেলাশাসক, পুলিশ সুপার ও মন্ত্রী। পরে অবশ্য সবকিছু দেখে মন্ত্রীসহ সবাই পরিমলকে প্রশংসা করেন।

মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ওসির পিট চাপড়িয়ে বলেন, ‘খুব ভালো একটা কাজ করেছেন। আপনি বৃদ্ধার চিকিৎসার ব্যবস্থা করুন, আমরা ঠিক পৌঁছে যাবো।’ এরপরই ওসি পরিমল মন্ত্রীর গাড়িবহর ছেড়ে ওই বৃদ্ধাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে বৃদ্ধা অনেকটাই সুস্থ।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সময় মতো ক্ষিপ্ত ষাঁড়ের হাত থেকে উদ্ধার করার জন্যই ওই বৃদ্ধা প্রাণে বেঁচে গেছেন।






মন্তব্য চালু নেই