মেইন ম্যেনু

মরণ ব্যাধি ক্যান্সার থেকে রক্ষা করবে আখরোট!

একটি নতুন গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাস এ ২৮ গ্রাম আখরোট অন্তর্ভুক্ত করলে, অন্ত্রে ব্যাকটেরিয়ার পরিবর্তন এর মাধ্যমে কোলন ক্যান্সার দূর হয়। মার্কিন কানেকটিকাট হেলথ সেন্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান তদন্তকারী ড্যানিয়েল রোজেনবার্গ বলেন, প্রথম বারের মত আমরা দেখলাম যে আখরোট সেবন কোলন টিউমার হ্রাস করে।

গবেষকরা দেখলেন, যে সব ইঁদুর মোট ক্যালরির সাত থেকে দশ শতাংশ আখরোট খায় তাদের কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। যখন পশ্চিমা খাদ্যের অংশ হিসেবে আখরোট খাওয়ার ঘোষণা করা হয়, তখন এর প্রভাব পড়েছিল একটি পুরুষ ইঁদুরের উপর যার টিউমার ২.৩ গুণ কমে গিয়েছিল। গবেষণায় বলা হয়, এটি সমতুল্য হবে যদি মানুষ দিনে এক আউন্স (২৮.৩ গ্রাম)আখরোট খায়। রোজেনবার্গ এর গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, আখরোট ক্যান্সার সহ স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষ সুবিধা প্রদান করে। এই গবেষনা দেখায় যে, কোলন সুস্থ করতে আখরোট বিশেষ ভূমিকা পালন করে, যেটা কোলন টিউমার থেকে রক্ষা করে।

আখরোট গুরুত্বপূর্ণ যৌগ হিসেবে কাজ করে। এতে রয়েছে, সাধারণ খাওয়ার বাদামের পলিয়ানসাটারেটেদ ফ্যাটি এসিড, সেইসাথে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড থেকে ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড এর সর্বোচ্চ অনুপাত, ভিটামিন ই এর উচ্চ মাত্রা এর সাথে ক্যান্সার প্রতিরোধের সুবিধা। আখরোট কেন উপকারী সেটা দেখার জন্য গবেষকরা কিছু ইঁদুরকে নমুনা হিসেবে নিয়েছিল এবং তাদের পাচক ট্র্যাক্ট এ বসবাসকারী ব্যাকটেরিয়া সম্প্রদায়কে বিশ্লেষণ করেছিল।

তাঁরা দেখলেন যে আখরোট শোষণে অন্ত্রের মাইক্রোবায়ব বাস্তুসংস্থান করে যেটা ক্যান্সারের বিরুদ্ধে সম্ভাব্য প্রতিরক্ষামূলক কাজ করে। তবে আখরোটকে একটি ক্যান্সার প্রতিরোধক এজেন্ট হিসাবে সুপারিশ করার আগে আরও পরীক্ষা করতে হবে। কারণ, পরীক্ষাটি শুধুমাত্র ইঁদুর এর জন্য করা হয়েছে, মানব জাতির জন্য না।

তথ্যটি জার্নাল ক্যান্সার প্রতিরোধ গবেষণায় রিপোর্ট করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই