মেইন ম্যেনু

‘মসজিদের শহরে সানি লিওনকে আসতে দেওয়া হবে না’

মসজিদের শহর ঢাকায় সানি লিওনের কোনো অনুষ্ঠান করতে দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। সানি লিওনকে পতিতা আখ্যায়িত করে চট্টগ্রামভিত্তিক ইসলামি সংগঠন হেফাজতে ইসলামের নেতারা বলেছেন, প্রশাসন ও সরকারের প্রতি আমরা স্পষ্টভাবে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করছি, নর্তকী আমদানি করে মসজিদের শহর ঢাকায় কোনো পতিতার অনুষ্ঠান করতে দেওয়া হবে না। অবিলম্বে এই নাচের অনুষ্ঠান ও পতিতা সানি লিওনের আগমন বন্ধ করতে হবে। অন্যথায় অনুষ্ঠানস্থলে ঢাকার সর্বস্তরের তওহিদি জনতাকে নিয়ে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে এবং যেকোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতির জন্য সংশ্লিষ্টরা দায়ী থাকবেন।

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী, অর্থ সম্পাদক মাওলানা ইলিয়াস ওসমানী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী এক যুক্ত বিবৃৃতিতে বলেন, বাংলাদেশ হাজার বছরের ইসলামের ইতিহাস-ঐতিহ্য সমৃদ্ধ অলি-আউলিয়ার পুণ্যভূমি। যুগযুগ ধরে এ দেশের মানুষ ব্যক্তিগত ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক জীবনে ইসলামের মূল্যবোধ লালন করে আসছে। সংখ্যাগরিষ্ঠ ধর্মপ্রাণ মুসলমানের এ দেশে নগ্নতা, অশ্লীলতা ও বেহায়াপনাকে সমাজের মূলধারার মানুষ বরাবরই প্রত্যাখ্যান করেছে। পাশ্চাত্য ও প্রতিবেশী দেশগুলোতে বেপরোয়া যৌনতা ও অনাচারের ফলে এইডসসহ নানা প্রাণঘাতী রোগ আশঙ্কাজনকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আমাদের সমাজ সে তুলনায় এখনো অনেক নিরাপদ রয়েছে। একশ্রেণির অসৎ ব্যবসায়ী ও চরিত্রহীন কথিত সাংস্কৃতিককর্মী ধর্মীয় ও সামাজিক মূল্যবোধকে পদদলিত করে, আবহমান বাংলার জাতীয় সংস্কৃতির বিপরীতে নির্বিচারে বিদেশি সংস্কৃতি আমদানির মাধ্যমে সমাজ ও সামাজিক কাঠামো ধ্বংসের অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। এসব নীতিভ্রষ্ট লোকেরাই সানি লিওন নামের কথিত বলিউড অভিনেত্রী, যাকে গোটা দুনিয়া আন্তর্জাতিক পতিতা হিসেবেই চেনে- তাকে ঘটা করে বাংলাদেশে আনার আয়োজন করছে।

সানি লিওনের ঢাকায় আগমন ঘটলে তওহিদি জনতা প্রতিরোধ করবে বলে হেফাজত নেতারা বিবৃতিতে উল্লেখ করেন।






মন্তব্য চালু নেই