মেইন ম্যেনু

মস্তিষ্ক সম্পর্কে এমন কিছু বিচিত্র তথ্য যা আপনি কখনো শুনেননি!

মানুষের শরীরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং জটিল অঙ্গের নাম মস্তিষ্ক। অত্যধিক জটিল এই অঙ্গটিতে সব সময় ঘটে চলেছে বিচিত্র সব পরিবর্তন। মস্তিষ্কের কাজ সম্পর্কে এখনো আমরা সব কিছু জেনে উঠতে পারিনি। যতটুকু জানা গিয়েছে তার মধ্যে থেকে কয়েকটি তথ্য দেয়া হলো আপনাদের জন্য।

১. জন্ম থেকে ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত মস্তিষ্কের বিকাশ ঘটে।
২. ৫-১০ মিনিট মস্তিষ্কে অক্সিজেন না পৌঁছলে পক্ষাঘাত এমনকী মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।
৩. প্রত্যেক স্মৃতি থেকে মস্তিষ্কে নতুন কানেকশন তৈরি হয়।
৪. একটি মস্তিষ্ক থেকে গড়ে যে পরিমাণ বিদ্যুৎতৈরি হয়, তা দিয়ে একটি বাল্ব জ্বালানো সম্ভব।
৫. শুধু জিভ নয়, মস্তিষ্কেও থাকে স্বাদকোরক।
৬. মানুষের মস্তিষ্কের ৬০ শতাংশই ফ্যাট।
৭. মস্তিষ্কের ডান দিক বা বাম দিক বলে আলাদা কিছু নেই। সমগ্র মস্তিষ্ক একই সঙ্গে কাজ করে।
৮. একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, বেশি ক্ষণ স্মার্ট ফোনের ব্যবহার করলে ব্রেন টিউমারের সম্ভাবনা বাড়ে।
৯. প্রয়োজনের তুলনায় কম ঘুমোলে, আপনার মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা হ্রাস পায়।
১০. মোট দেহের ওজনের মাত্র ২ শতাংশ ওজন হয় মস্তিষ্কের। কিন্তু শরীরের মোট এনার্জির ২০ শতাংশ ব্যবহার করে।
১১. মস্তিষ্কে মোট ৮৬ বিলিয়ন কোষ থাকে।
১২. মস্তিষ্কের বেশির ভাগ কোষ একে অন্যের থেকে আলাদা। প্রায় ১০ হাজার আলাদা নিউরন রয়েছে এখানে।
১৩. দ্রুত বেড়ে ওঠার জন্য শিশুদের মস্তিষ্কের আকার বেশ বড় হয়। একটি দু’বছরের শিশুর মস্তিষ্কের আকার পূর্ণবয়স্ক মানুষের প্রায় ৮০ শতাংশ হয়।
১৪. প্রতি সেকেন্ডে এক লক্ষের বেশি রাসায়নিক বিক্রিয়া হয় মস্তিষ্কে।
১৫. অ্যালবার্ট আইনস্টাইনের মস্তিষ্কের ওজন ছিল ২.৭১ পাউন্ড। সাধারণের তুলনায় যা বেশ কিছুটা ছোট।
১৬. নিয়ান্ডারথালদের মস্তিষ্ক আধুনিক মানুষের চেয়ে প্রায় ১০ শতাংশ বড় ছিল।-আনন্দবাজার






মন্তব্য চালু নেই