মেইন ম্যেনু

মহাকাশে খোঁজ মিললো একঝাঁক সূর্যের

খালি চোখে রাতের দুর আকাশে তাঁকিয়ে হয়ত অনেক বার তারা গোনার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু পারেননি, পারার কথাও নয়। ‘আকাশ ভরা সূর্য তারা’ বলে একটা কথা ছিল সেটাও হয়ত মিথ্যা নয়। অন্তত, দিনের পর দিন যে হারে নতুন নতুন সমীক্ষা আমাদের সামনে নিয়ে আসছে নাসা, তার ভিত্তিতে আর কী-ই বা বলা যায়!

এর আগে সূর্যের চেয়ে বড় অনেক নক্ষত্রেরই সন্ধান আমাদের দিয়েছে নাসা। তবে, সাম্প্রতিক এই আবিষ্কার ছাপিয়ে গেল সবকটাকেই! নাসা জানাল, মহাকাশের একটা অংশে ঝাঁক বেঁধে রয়েছে অনেকগুলো সূর্য। আর, এগুলো সূর্যের চেয়ে ১০০ গুণ বড়!

কী ভাবে খোঁজ মিলল এই ঝাঁক-বাঁধা সূর্যমণ্ডলীর? অতিবেগুনি রশ্মির মধ্যে লুকিয়ে আছে যে নতুন জন্ম নেওয়া তারামণ্ডল, এই প্রথম তার দিকে চোখ ফেললেন বিজ্ঞানীরা। হাবল স্পেস টেলেস্কোপের সাহায্যে। আর, তাতেই সামনে এল এই বিস্ময়কর তথ্য। জানা গেল, R136 নামের এই তারামণ্ডলের সঠিক অবস্থান লার্জ মেগালিনিক ক্লাউড গ্যালাক্সির অন্তর্গত টারান্টুলা নেবুলা ছায়াপথে। পৃথিবী থেকে যার দূরত্ব ১৭০,০০০ আলোকবর্ষ।

নাসা আরও জানিয়েছে, তাদের বিজ্ঞানীদের মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল সব চেয়ে বড় আর সব চেয়ে গরম যে তারারা ক্রমাগত ইউভি রশ্মি বিকিরণ করে চলে, তাদের খোঁজ করা! সেই খোঁজ করতে গিয়েই ধরা দিল এই একঝাঁক সূর্যেরা।

সব মিলিয়ে, মহাকাশ গবেষণায় উত্তেজনা এখন তুঙ্গে। বিজ্ঞানীদের ধারণা, এই তারামণ্ডলকে সঠিক ভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারলে উঠে আসবে নানা প্রয়োজনীয় তথ্য। আর কিছু না হলেও এই বিশাল মাপের নক্ষত্ররা কী ভাবে জন্মায়, কী ভাবেই তাদের চারিত্রিক পরিবর্তন ঘটে- জানা যাবে সেগুলো!
তাই বা কম কী! সূত্র : ভারতীয় মিডিয়া সংবাদ প্রতিদিন।






মন্তব্য চালু নেই