মেইন ম্যেনু

মহাখালীতে ছাত্রলীগের নির্বিচার গাড়ি ভাঙচুর

ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধরের অজুহাতে তিতুমীর কলেজের সামনে তাণ্ডব চালিয়েছে ছাত্রলীগ।

সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে তারা একযোগে রাস্তায় নেমে আসে এবং নির্বিচারে গাড়ি ভাঙচুর শুরু করে এবং এ সময় অন্তত ৩০টির বেশি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

তাদের তাণ্ডবের পর মহাখালী আমতলা থেকে গুলশান-১ নম্বর সার্কেলগামী সড়কে প্রায় আধা ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ এসে রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ কমিশনার মুশতাক আহমেদ খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে, তা আমরা জানার চেষ্টা করছি।”

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কলেজ শাখা ছাত্রলীগের একটি দল বেলা সোয়া ২টার দিকে লাঠি হাতে তিতুমীরের ফটকে জড়ো হয়ে স্লোগান দিতে থাকে।

এর কিছুক্ষণ পর অর্ধশতাধিক তরুণ মূল সড়কে এসে নির্বিচারে গাড়ি ভাংচুর শুরু করে।এ সময় সাধারণ মানুষের মধ্যে তৈরি হয় আতঙ্ক। দুই দিকে যান চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়।

তাণ্ডবের পরপরই তিতুমীর কলেজের ভেতরে একটি এবং উল্টো পাশের গলির ভেতরে আরেকটি দলকে মুখোমুখি অবস্থান নিতে দেখা যায়। এ সময় দুই পক্ষই ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান দিচ্ছিলেন বলে আমাদের প্রতিবেদক জানান।

এ সময় কলেজের ভেতর থেকে ধারাল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে কয়েকজনকে ফটকের দিকে এগোতে দেখা যায়।

দুই পক্ষের উত্তেজনার মধ্যে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।






মন্তব্য চালু নেই