মেইন ম্যেনু

মহিলাদের সমস্যা দূর করতে বাজারে নতুন ধরনের অন্তর্বাস

এবার মহিলাদের মুশকিল আসান করতে বাজারে আসছে নয়া প্যান্টি৷ পিরিয়ডের সময় অধিকাংশ মহিলাই দাগ লাগার ভয়ে এবং শারীরিক অস্বস্তির জন্য ঘরের বাইরে পা দেন না৷ কিন্তু আধুনিক ব্যস্ততার দিনে মহিলাদেরও বাড়িতে বসে থাকার সুযোগ নেই৷

ফলে বাজারচলতি স্যানিটারি ন্যাপকিন কিংবা ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি প্যাড ব্যবহার করে তাঁদের ছুটতে হয় কর্মক্ষেত্রে৷ প্যাডের দাম অনেক৷ তাছাড়া বারবার প্যাড বদলানো একটা সমস্যা৷ বাড়ির বাইরে সর্বত্র সেই সুযোগ থাকেও না৷

এই সব সমস্যাকে মাথায় রেখেই এবার বাজারে আসছে নতুন ধরনের প্যান্টি৷ এই অন্তর্বাস পড়লে প্যাড ব্যবহার করতে হবে না৷ সারাদিন এই একটি অন্তর্বাসেই সমস্যা মিটবে৷ সাতটি প্যান্টির এই কম্বো প্যাকটি বাজারে এনেছেন ‘থিংস’এর সিইও সিকি আগরওয়াল৷ তিনি জানিয়েছেন, মহিলাদের সার্বিক সুরক্ষা এবং সুবিধার জন্যই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে৷ভারতীয় কয়েকটি গণমাধ্যম এমন খবর প্রকাশ করেছে।

এর আগেই এই একই উদ্দেশ্যে বাজারে এসেছিল ট্যামপন৷ এটি অনেকটা একটি মোড়কের মধ্যে রাখা তুলোর মত। আকারে একটি নলের মতো হয়। এটিকে যোনিদ্বারে ঢুকিয়ে দিলে আলাদা করে আর প্যাড নেওয়ার প্রয়োজন হয় না৷ মাসিকের সময় শরীর থেকে যে স্রাব নির্গত হয় তা ওর মধ্যেই জমা হয়৷ কিন্তু এটি ব্যয়সাপেক্ষ৷ ফলে অধিকাংশ মহিলার পক্ষেই এটি নিয়মিত ব্যবহার করা সম্ভব নয়।

নতুন ধরনের প্যান্টি এর থেকেও আধুনিক এবং কম দামের। অন্তত এমনটাই দাবি ‘থিংস’-এর। এই কম্বো প্যাকটিতে সাতটি প্যান্টি থাকবে৷ ভারী ও হাল্কা ফ্লোয়ের জন্য ভাগ করা রয়েছে প্যান্টিগুলি৷ এগুলি দুবছর পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে৷

এই প্যাকটির দাম ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৩-১৪ হাজার টাকা৷ একবার কিনে নিলে দু’বছর আর পিরিয়ডের সময় অন্য কিছু ব্যবহার করতে হবে না। শুধু তাই নয় এটি আপনার জামা কাপড়কেও নষ্ট হতে দেবে না৷ কেউ চাইলে ‘থিংস’-এর ওয়েবসাইটে লগ অন করে বিস্তারিত তথ্য পেয়ে যাবেন। কিনেও নিতে পারেন।

ইতিমধ্যেই বিদেশে মহিলাদের মধ্যে এটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংস্থার সিইও মিকি আগরওয়াল৷






মন্তব্য চালু নেই