মেইন ম্যেনু

মাইগ্রেনের ব্যথা দূর করুন ছোট্ট এই উপায়ে

মাইগ্রেনের ব্যথায় প্রায়ই কাতরান আপনি? নানারকম পদ্ধতি চেষ্টা করেও কোন কিছু হয়নি? ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী গাদা গাদা ওষুধই এখন আপনার শেষ ভরসা? তাও আবার বিফল চেষ্টায় বারবার কেবল কষ্টই পাচ্ছেন? তাহলে আপনার জন্যেই এই তথ্যটি। আপনি কি জানেন যে এত কষ্ট সহ্য করে যে সাংঘাতিক ব্যথাটিকে বছরের পর বছর ধরে মাথায় পুষে রেখেছেন সেটার সমাধান একদমই ছোট্ট আর সহজ? বলতে গেলে একেবারে পানির মতন সহজ!

তবে কেবল পানি নয়, এই মাইগ্রেনের ব্যথা নিরাময়ক জিনিসটি তৈরি করতে পানির সাথে আপনার আরো দরকার পড়বে লেবু ও একটুখানি লবনের। তবে এক্ষেত্রে খুব ভালো মানের সামুদ্রিক লবণ বেছে নিতে হবে আপনাকে। কারণ জানা যায় যে, উন্নত মানের লবনে প্রায় ৮০ ধরনের খনিজ পদার্থ থাকে (লাইফহ্যাক)।

এই তিনটি জিনিসকে একত্রে মিশিয়ে নিয়ে পান করে ফেলুন। তারপর আর কয়েকটা মিনিটের অপেক্ষামাত্র। দেখবেন কোথায় হাওয়া হয়ে গিয়েছে আপনার মাইগ্রেনের ব্যথা! মূলত, লবণ মানুষের শরীরে সেরোটোনিনের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। যেটা শরীরের নানারকম প্রদাহ আর ব্যথাকে নিরাময় করতে খুব দ্রুত সাহায্য করে থাকে।

তবে এই পদ্ধতি বাঁধাধরা কিছু মাইগ্রেন পেশেন্টের ক্ষেত্রেই কাজে আসবে। যদি আপনার মাইগ্রেনের ব্যথা নীচের ব্যাপারগুলোর সাথে মিলে যায় তাহলে আপনি বুঝতবেন যে এই রবন, পানি আর লেবুর মিশ্রণটি আপনার ক্ষেত্রেও কাজে আসবে। চিহ্নগুলো হচ্ছে-

১. সর্দি

২. মাথা কাঁপা

৩. বমিভাব

৪. তীব্র যন্ত্রণা

৫. অবশভাব

৬. তন্ত্রাচ্ছন্নতা

৭. আলো, গন্ধ ও চেঁচামেচির ব্যাপারে অল্পতেই কাতর হয়ে পড়া

৮. ২ থেকে ৭২ ঘন্টার মাঝে যেকোন একটা সময়ব্যাপী ব্যথা স্থায়ী হওয়া ( বেস্ট হার্বাল হেলথ )

এর ভেতরে যেকোনটি যদি আপনার সাথে মিলে যায় তাহলে বুঝবেন উপরের দ্রবণটি বেশ কাজে আসবে আপনার।

এছাড়াও উপরোক্ত পানীয়টিতে আপনি পাবেন যথেষ্ট পরিমাণ ম্যাগনেশিয়ামও। যেটা কিনা আপনার ঘাড় বা মাথার প্রদাহকে দূর করে দিতে সাহায্য করবে। সাধারণত চাপ, দুঃশ্চিন্তা, মদ্যপান, মিনারেল বা পানীয়ের অভাবজনিত কারণে মাইগ্রেন হয়ে থাকে। আর তাই শরীরকে এসব ব্যাপার থেকে মুক্তি দিতে তরল কিছু পান করা উচিত। যাতে থাকবে ভরপুর খনিজ। এই পানীয়টি ঠিক সেই কাজটিই করে আর মিনিটের ভেতরে সারিয়ে দেয় মাইগ্রেনকে।






মন্তব্য চালু নেই