মেইন ম্যেনু

মাগুরায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাগুরা সদরের কছুন্দি এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ অমিনুল ইসলাম ওরফে লিটন ডাকাত নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন চার পুলিশ সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ নাইন এমএম পিস্তল, গুলি, ম্যাগজিন, রামদা, চাপাতি উদ্ধার করেছে।

সোমবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ডাকাত লিটন সদর উপজেলার আজমপুর গ্রামের ইদ্রিস মোল্লার ছেলে।

পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ জানান, ভোরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের কছুন্দি এলাকায় একদল ডাকাত রাস্তায় গাছ ফেলে যানবাহনে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল, খবর পেয়ে সদর থানার টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় ডাকাতরা পুলিশকে গুলি করলে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ডাকাত দল পিছু হটে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য অমিনুল ইসলাম ওরফে লিটন ডাকাতের গুলিবিদ্ধ লাশ পড়ে থাকতে দেখে। লাশের পাশ থেকে পুলিশ একটি নাইন এমএম পিস্তল, ৫ রাউন্ড পিস্তল, ৯ রাউন্ড বন্দুকের গুলি, একটি ম্যাগজিন, ২টি রামদা, ১টি চাপাতি, গাছকাটার করাত, সাবল উদ্ধার করে। লিটনের লাশ উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে আনা হয়।

বন্দুকযুদ্ধে চার পুলিশ সদস্য তাজ উদ্দিন, কামরুল, মামুন ও লাল মিয়া আহত হন বলে পুলিশ দাবি করেছে। তাদের মাগুরা সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

নিহত ডাকাত সর্দার লিটনের বিরুদ্ধে মাগুরা সদর থানা ও কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানায় একাধিক ডাকাতি মামলা রয়েছে। একটি মামলায় আদালতে তার ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি ও সম্প্রতি ফেসবুকের মাধ্যমে শনাক্ত করে বাবুল ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়। পরে বাবুল ডাকাত ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে মাগুরায় সংঘটিত একাধিক ডাকাতির সঙ্গে লিটনের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বলে জানান এসপি এহসান।






মন্তব্য চালু নেই