মেইন ম্যেনু

মাঘের শুরুতেই জেঁকে বসেছে শীত

পৌষ মাস তুলনামূলক স্বস্তিতে কাটলেও মাঘের শুরুতেই বেড়ে গেছে শীতের দাপট। দুঃসহ জীবন কাটছে ছিন্নমূল মানুষের। রাজধানীতে একটু কম হলেও গ্রামে শীত জেঁকে বসেছে। দেশের বিভিন্ন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। নীলফামারী ও কুড়িগ্রাম জেলার উপর দিয়ে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অবশিষ্টাংশ এবং মাদারীপুর, টাঙ্গাইল, সীতাকুন্ডু, রাঙ্গামাটি, শ্রীমঙ্গল ও কুষ্টিয়া অঞ্চলের উপর দিয়ে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

এই শৈত্যপ্রবাহ পরিস্থিতি আরো কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে আজ আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের টেকনাফে সর্বোচ্চ ২৫ দশমিক ৮ ও রংপুর বিভাগের রাজারহাটে সর্বনিম্ন ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াম তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। শনিবার আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে এ তথ্য জানা গেছে।

বাংলা ক্যালেন্ডারের হিসেবে আজ পহেলা মাঘ। মাঘের শুরুতেই রাজধানীসহ সারাদেশে শীত জেঁকে বসেছে। পৌষ মাসের শেষ সপ্তাহেও অনেকের মধ্যে এবার শীতের কমতি নিয়ে কিছুটা হতাশা থাকলেও গত ২-৩ ধরে কনকনে ঠান্ডা শীতের অনুভূতি বেশ ভালভাবেই অনুভব করছেন।

মাঘের শীতের প্রকোপে রাজধানীসহ সারাদেশে স্বাভাবিক জীবনযাপনে কিছুটা হলেও স্থবিরতা নেমে এসেছে। আগের মতো কাকডাকা ভোরে প্রাতঃভ্রমণকারিসহ শ্রমজীবি মানুষকে রাস্তাঘাটে দেখা যাচ্ছে না। রোদ উঠার পর গরম জামাকাপড় গায়ে চাপিয়ে তবেই ঘর থেকে সকলে বের হচ্ছেন।

আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্যানুসারে, গত সাতদিনে রাজধানী ঢাকার তাপমাত্রা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। গত ৮ জানুয়ারী ঢাকায় সর্বোচ্চ ২৭ ও সর্বনিম্ন ১৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল। আজ শনিবার (১৪ জানুয়ারি) সেই তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ২২ ও সর্বনিম্ন ৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে এসেছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই