মেইন ম্যেনু

মাছ শরীরের জন্য কতটা নিরাপদ?

এশিয়া জুড়ে মাছ খাওয়ার ওপর মানুষের বিশেষ আগ্রহ রয়েছে। মাছের নানা রকম পদ অনেকের পছন্দ। বিশেষ করে এশিয়ার দেশগুলোতে মাছের চাহিদা বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তের চেয়ে বেশি। বলা হয় মাছ হলো পুষ্টির সম্পূর্ণ যোগানদাতা।

কিন্তু একটি গবেষণায় দেখা গেছে, মাছে উদ্বেগজনক হারে মারকারি ও অন্যান্য রাসায়নিকের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। তাহলে মাছ খাওয়ার ক্ষেত্রে কি বিশেষ সর্তকতা নিতে হবে? ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজের হার্ট স্পেশালিষ্ট রাজিব চৌধুরি বলছিলেন, যদিও আমরা জানি মাছে ফ্যাটি এসিড আছে, কিন্তু মাছ হলো অনেক পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার। আমাদের ব্যবহার করা বিভিন্ন জিনিস থেকে মার্কারি প্রথমে বাতাসে মিশে যাচ্ছে।

পরে সেটা বৃষ্টির পানির সাথে সরাসরি যেয়ে পড়ছে নদী-নালা, খাল বিল ও সমুদ্রে। সেটা তখন মিথাইল মার্কারি পরিণত হচ্ছে এবং মাছের খাদ্য হয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, মার্কারি এক একটা মাছে এক এক মাত্রায় থাকে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মাছে মার্কারির পরিমাণ কম থাকে। তবে এটা এক এক মাছে এক এক রকম। আমি মনে করি যতটুকু মার্কারি থাক না কেন সেটা মাছের গুণাগুণকে নষ্ট করে। বিশেজ্ঞরা বলেন, ২০০ গ্রাম মাছ একজন মানুষের খা্ওয়া উচিত। তবে গর্ভবতী মায়েদের এই পরিমাণ অর্ধেক।

খবর: বিবিসি বাংলা






মন্তব্য চালু নেই