মেইন ম্যেনু

মাটি খুঁড়ে মিললো ২ কলসভর্তি রূপা ও স্বর্ণমুদ্রা

১৮৪০ থেকে ১৮৬০ খ্রিস্টাব্দে মল্লরাজাদের অধীনে থাকা মহান্ত জমিদারদের প্রাসাদ ছিল পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়ার জয়পুর থানার শ্রীরামপুরে। আর সেই জমিদার বাড়ির পাশেই ছিল এক প্রাচীন মন্দির।

মন্দিরের পাশে রয়েছে বিশাল মাঠ। এক সময় সেখানে ভয়ে কেউ যেতো না। এখন অবশ্য খোলা ময়দান। সেই মাঠের মাটি খোঁড়তে গিয়ে দু’টি মাটির কলস পাওয়া যায়। সেগুলোর মুখ ছিল বাঁধা। যেখান থেকে উদ্ধার হয় ২৯টি রূপোর ও একটি সোনার মুদ্রা।

ধারণা করা হচ্ছে ১৮৪০ থেকে ১৮৬০ খ্রিস্টাব্দে মল্লরাজাদের আমলেই তৈরি হয়েছিল মুদ্রাগুলো। হয়তো চুরি যাওয়ার ভয়ে রূপা ও সোনার মুদ্রাগুলো মাটির কলসে ভরে তারাই মাটির নিচে পুঁতে রেখেছিল।

এদিকে মুদ্রা পাওয়ার খবর শুনেই এলাকায় ভিড় করে গ্রামবাসী। এরপর উদ্ধার হওয়া ওই মুদ্রাগুলোকে প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের কাছে তুলে দেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই