মেইন ম্যেনু

মাত্র ৩০ সেকেন্ডের ভুলে ডুবেছিল টাইটানিক! কী ভুল? কে দায়ী?

মাত্র ৩০ সেকেন্ড। সময়ের সামান্য হেরফের। লোনা জলের বুকে ইতিহাসের অন্যতম বৃহৎ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে গিয়েছিল সময়ের এই ছোট্ট হিসেবেই।

বাঁচানো যেত টাইটানিককে। টাইটানিক-কে বাঁচানোর জন্য হাতে ৩০ সেকেন্ড ছিল। হয়তো বাঁচিয়ে দেওয়া যেত। কিন্তু যায়নি। কী ঘটেছিল সে‌ই রাতে?

ঠিক যে মুহূর্তে হিমশৈলটি নাবিকদের চোখে পড়েছিল, তাঁরা বিষয়টি জাহাজের দায়িত্বে থাকা অফিসারকে জানিয়েছিলেন। আর সেখানেই মোক্ষম একটি ভুল করে ফেলেন জাহাজের অফিসার-ইন-চার্জ উইলিয়াম মার্ডক। জাহাজের পথ পাল্টানোর নির্দেশ দিতে তিনি সময় নিয়েছিলে পাক্কা তিরিশ সেকেন্ড।

আগে মনে করা হত, মার্ডক সঙ্গে সঙ্গেই জাহাজের পথ পাল্টানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু তখন কাজ হয়নি। বলা হয়েছিল যে, হিমশৈলটি দেখতেই দেরি করে ফেলেছিলেন নাবিকরা। যে সময়ে তাঁরা মার্ডককে সতর্ক করেন, সে সময়ে জাহাজের পথ পাল্টেও কিছু করার ছিল না। যদিও সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, বাস্তবে ঘটেছিল উল্টোটাই। গবেষকরা বলছেন, জাহাজের গতিমুখ পাল্টালে কী হতে পারে, তা নিয়ে দ্বিধায় ছিলেন মার্ডক। তিনি ভেবেছিলেন, এক বিপদ থেকে বাঁচতে আরও বড় বিপদে পড়তে পারে টাইটানিক। -এবেলা






মন্তব্য চালু নেই